করোনা স্বাস্থ্যবিধিকে 'ওপেন চ্যালেঞ্জ', কলেজ শিক্ষক গ্রেফতার

করোনা স্বাস্থ্যবিধিকে 'ওপেন চ্যালেঞ্জ', কলেজ শিক্ষক গ্রেফতার
- ফাইল ছবি

poisha bazar

  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ১৩ মে ২০২০, ২০:১১

লালমনিরহাটে করোনাভাইরাস নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভ্রান্তি ছড়ানোর অভিযোগে শরিফুল ইসলাম নামে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। গত মঙ্গলবার দিবাগত রাতেই ওই শিক্ষককে পাটগ্রাম পৌর শহরের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের মির্জারকোর্ট এলাকার বাসা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

পাটগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুমন কুমার মোহন্ত জানান, পাটগ্রাম আদর্শ ডিগ্রি কলেজের শিক্ষক শরিফুল ইসলাম নভেল করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে স্বাস্থ্যবিধি ‘সঠিক নয়’ দাবি করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট দিয়েছেন। শুধু তাই নয়, করোনা প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব, হ্যান্ডশেক না করা, কোলাকুলি না করার নির্দেশনা ‘ইসলামের উপরে আঘাত’ এনেছে বলেও দাবি তার। নিজেকে একজন ক্যামিস্ট দাবি করে তার পোস্টে করোনা প্রতিরোধে স্যানিটাইজারের ব্যবহার, মাস্কের ব্যবহার, ঘরে থাকা প্রভৃতি নির্দেশনাকেও চ্যালেঞ্জ জানিয়েছেন তিনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এসব ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয়দের মধ্যে তুমুল সমালোচনার সৃষ্টি হয়।
পরে গত মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে পাটগ্রাম থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) আশরাফুল ইসলাম বাদী হয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২৫(২) ও ৩১(২) ধারায় কলেজ শিক্ষক শরিফুল ইসলামকে আসামি করে মামলাটি দায়ের করেন। রাতেই ওই শিক্ষককে পাটগ্রাম পৌর শহরের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের মির্জারকোর্ট এলাকার বাসা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ওসি সুমন কুমার মোহন্ত আরো বলেন, ওই শিক্ষক শরিফুল ইসলামের বিরুদ্ধে সরকারের প্রচলিত আইনকে অস্বীকার ও করোনাভাইরাস নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে অপপ্রচার করে স্ট্যাটাস দিয়ে সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত করার অভিযোগ আনা হয়েছে। তাকে আগেও সতর্ক করার পরও তিনি উল্টো ধর্মান্ধ হয়ে ‘ওপেন চ্যালেঞ্জ করে বাজি ধরে’ ফের ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন এবং অন্যান্যদের বিতর্ক করে আসছিলেন। যা নিয়ে স্থানীয় পর্যায়ে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনার ঝড় ওঠে। বিষয়টি প্রশাসনের নজরে আসে। এরপরে আমরা অধিকতর তদন্ত করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা রেকর্ড করে ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছি। বুধবার দুপুরে তাকে লালমনিরহাট আদালতে সোপর্দ করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আবেদন করা হবে বলেও জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

মানবকণ্ঠ/এআইএস




Loading...
ads






Loading...