বাংলাদেশির শরীরে করোনার অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি

মানবকণ্ঠ
ছবি - সংগৃহীত।

poisha bazar

  • সেলিম আহমেদ
  • ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১১:৪৭,  আপডেট: ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২:২৫

এখন পর্যন্ত চীন থেকে ফেরত আসা কোনো বাংলাদেশি নাগরিকের দেহে পাওয়া যায়নি করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব। ফেরত আসা যেসব নাগরিকের দেহে জ্বর ছিল বা যাদের শরীরে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব আছে বলে সন্দেহ করা হয়েছিল তাদের নমুনা পরীক্ষা করে শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া যায়নি বলে জনিয়েছেন সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।

সর্বশেষ গতকাল মঙ্গলবার তিনি জানান, চীন থেকে রোববার পর্যন্ত রাজধানীর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে চীনফেরত ৫ হাজার ৯৫২ ব্যক্তিকে ‘থার্মাল স্ক্রিনিং’ করা হয়। এর মধ্যে করোনা ভাইরাস সন্দেহে শরীরের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে মোট ৩৪ জনের। এদের কারো শরীরেই ভাইরাসের কোনো উপস্থিতি পাওয়া যায়নি।

অন্যদিকে চীনের উহান থেকে ফিরে আশা ৩১২ বাংলাদেশি হতাশা কাটিয়ে উঠেছেন। তাদের কারো শরীরে পাওয়া যায়নি করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব। আত্মীয়স্বজন বন্ধু-বান্ধবীর সঙ্গে ফেসবুকে চ্যাটিং, ভিডিও কলে কথাবার্তা ও টেলিভিশনে বিভিন্ন অনুষ্ঠান দেখে এখন বেশ ভালোই সময় কাটছে তাদের। সরকারের পক্ষ থেকে তাদের জন্য বিনামূল্যে ইন্টারনেট সংযোগ প্রদান ও ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে টেলিভিশন সরবরাহ করা হয়েছে। জ্বর নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি থাকা ৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি না পাওয়ায় বেশ খোশ মেজাজে সময় কাটাচ্ছেন তারা। ইতোমধ্যে হাসপাতালে ভর্তি থাকাদের মধ্যে সাতজন আশকোনা হজ ক্যাম্পে ফিরে এসেছে। তারা আরো কয়েকদিন সেখানে নিবিড় পর্যবেক্ষণে থাকবেন।

সংক্রমণ প্রতিহতের প্রচেষ্টায় ‘ঘাটতি’ ছিল: ভয়াবহ এই ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিহত করতে চীনের প্রচেষ্টায় ‘ঘাটতি’ ছিল। চীনের বার্তা সংস্থা সিনহুয়ার খবরে বলা হয়, সোমবার রাতে পলিট ব্যুরোর স্থায়ী কমিটির বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। করোনা ভাইরাস প্রতিহত করার চলমান প্রচেষ্টাকে চীনের প্রশাসনিক ব্যবস্থায় সবচেয়ে বড় পরীক্ষা বলে আখ্যা দেয়া হয় এবং বলা হয় এ থেকে অনেক কিছু শেখার আছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘এই প্রাদুর্ভাব মোকাবিলা করতে গিয়ে যেসব ‘অক্ষমতা ও ঘাটতি’ স্পষ্ট হয়েছে, সেগুলোর প্রেক্ষিতে, আমাদের অবশ্যই জাতীয় জরুরি ব্যবস্থাপনা পদ্ধতির উন্নতি করতে হবে। সেই সঙ্গে জরুরি ও ভয়ঙ্কর কাজগুলো মোকাবিলায় আমাদের সক্ষমতা বাড়াতে হবে।’

এতে আরো বলা হয়, ‘বাজার পর্যবেক্ষণ আরো জোরদার করা, বন্যপ্রাণীর অবৈধ বাজার ও বাণিজ্যের ওপর দ্ব্যর্থহীনভাবে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা এবং কঠোর অভিযান পরিচালনা করা জরুরি।’

পলিট ব্যুরো স্থায়ী কমিটি জানিয়েছে, উহান ‘সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার’ হিসেবেই গণ্য হবে এবং সেখানে আরো স্বাস্থ্যকর্মী পাঠানো হবে।

মহামারী প্রতিরোধে নিজেদের ভূমিকার পূর্ণ দায়ভার কর্মকর্তাদের নেয়া উচিত উল্লেখ করে কমিটি হুঁশিয়ার করে দিয়ে বলেছে, যারা নিজেদের দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হবে তাদের শাস্তি দেয়া হবে।

পলিট ব্যুরোর কাছ থেকে এমন খোলামেলা স্বীকারোক্তি ‘বিরল’ বলে এরই মধ্যে জানিয়ে দিয়েছে আরেক প্রভাবশালী গণমাধ্যম বিবিসি। বৈঠকে চীনের জরুরি ব্যবস্থাপনা পদ্ধতির উন্নতির আহ্বান জানিয়েছেন নীতিনির্ধারকরা। একই সঙ্গে বন্যপ্রাণীর অবৈধ বাজারগুলোর বিরুদ্ধে জোরালো অভিযান শুরু করার নির্দেশ দিয়েছেন তারা। ধারণা করা হয়, এ বাজারগুলো থেকেই করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রথম শুরু হয়।

ভয়াবহ পরিস্থিতিতে চীন, করোনা ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ৪২৬ : চীনে করোনা ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বাড়ছেই। এখন পর্যন্ত সেখানে ৪২৫ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে। এ ছাড়া চীনের বাইরে ফিলিপাইনেও একজন মারা গেছে। গতকাল মঙ্গলবার হুবেই প্রদেশের কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, নতুন করে সেখানে আরো ৬৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।

হুবেই প্রদেশের স্বাস্থ্য কমিশনের তথ্য অনুযায়ী, নতুন করে সেখানে আরো দুই হাজার ৩৪৫ জন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। ফলে এখন পর্যন্ত মোট ১৯ হাজার ৫৫০ জন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। ২০টির বেশি দেশে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। চীনা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, তাদের জরুরিভিত্তিতে মাস্ক, প্রটেক্টিভ স্যুট এবং অন্যান্য চিকিৎসা সামগ্রী প্রয়োজন।

চীনাদের সব ভিসা বাতিল করল ভারত: ১৫ জানুয়ারির পর থেকে এখন পর্যন্ত চীনা নাগরিক কিংবা দেশটিতে বসবাসরত বিদেশিদের যেসব ভিসা প্রদান করা হয়েছে তা আর ‘বৈধ’ নয়। গত মাসের মাঝামাঝি সময় থেকেই করোনা ভাইরাস দ্রুত ছড়াতে শুরু করে। বিবৃতি অনুযায়ী নির্দিষ্ট ওই দিনের আগে যেসব চীনা নাগরিক ভারতীয় ভিসা করেছেন তাদের আর ভারতে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না। ভারত বলছে, শুধু চীনা নয় চীন থেকে ভারতে আসতে চাচ্ছেন এমন বিদেশি নাগরিকদের কাছে ভিসা থাকলেও তা ‘অবৈধ’ বলে গণ্য হবে। চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহর থেকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধ ও বিস্তার ঠেকাতেই এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। করোনা ভাইরাস নিয়ে কোনো ঝুঁকি নিতে চাচ্ছে না ভারত। তাই আপাতত চীনাদের জন্য সব রকমের ভিসা বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

বেলজিয়ামে ‘সুস্থ’ ব্যক্তির শরীরে করোনা ভাইরাস: চীনের উহান শহর থেকে শুরু করে বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাস ছড়াচ্ছে দ্রুতগতিতে। গতকাল মঙ্গলবার ইউরোপের দেশ বেলজিয়ামে প্রথম করোনা ভাইরাস আক্রান্ত ব্যক্তি শনাক্ত হয়েছেন। তিনি সম্প তি উহান থেকে ফেরা নয়জনের মধ্যে একজন বলে জানিয়েছে বেলজিয়ামের জনস্বাস্থ্য বিভাগ। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানায়, গত রোববার উহান থেকে ফেরা নয়জনকে ব্রাসেলসের একটি সামরিক হাসপাতালে পরীক্ষা করা হয়। তাদের মধ্যে একজনের শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে।

মার্কিন বিশেষজ্ঞদের প্রবেশের অনুমতি চীনের: দ্রুত সংক্রামক নভেল করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) সহযোগিতামূলক প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে মার্কিন বিশেষজ্ঞদের প্রবেশের অনুমতি দিতে সম্মত হয়েছে চীন। নতুন, নিউমোনিয়া সদৃশ প্রাণঘাতী ভাইরাসটিতে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা ক্রমবর্ধমান হারে বাড়ার মধ্যে বেইজিংয়ে সিদ্ধান্ত নিল বলে বিভিন্ন সংবাদ সংস্থা এ তথ্য জানায়।

গত সোমবার একদিনেই চীনের মধ্যাঞ্চলীয় হুবেই প্রদেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত নতুন দুই হাজার ৩৪৫ ব্যক্তিকে শনাক্ত করা হয়। এদিন মৃত্যু হয় ৬৪ জনের। এদিন হোয়াইট হাউস গণমাধ্যমকে জানায়, উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাস নিয়ে গবেষণা ও সংক্রমণ মোকাবিলায় সহযোগিতার অংশ হিসেবে চীন ডব্লিউএইচওর মিশনের আওতায় মার্কিন গবেষকদের তাদের দেশে যাওয়ার প্রস্তাবে সম্মতি দিয়েছে। আক্রান্তদের চিকিৎসায় উহানে ১০ দিনে বানানো হাজার শয্যার হাসপাতালটি সোমবার চালু করা হয়েছে।

এক হাজার ৬০০ শয্যার অপর একটি হাসপাতালও বুধবার চালু হবে বলে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা গত সপ্তাহে নতুন এ করোনা ভাইরাসের কারণে বৈশ্বিক সতর্কতা জারি করেছে। চীনের বাইরে দুই ডজনের মতো দেশে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত ব্যক্তির খোঁজ মিলেছে। ফিলিপিন্স ও হংকংয়ে আক্রান্ত দুই ব্যক্তির মৃত্যুরও খবর দিয়েছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম। সোমবার চীন যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে করোনা ভাইরাস নিয়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ এনেছে।

ওয়াশিংটন মার্কিন নাগরিকদের চীন থেকে সরিয়ে নেয়ার পাশাপাশি চীন ভ্রমণ করা বিদেশি নাগরিকদের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে এমনটা করছে বলে অভিযোগ করেছেন চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হুয়া চুনইং। করোনা ভাইরাস নিয়ে বৈশ্বিক সতর্কতা জারি করলেও ডব্লিউএইচও বাণিজ্য ও ভ্রমণে বিধিনিষেধ আরোপের বিরুদ্ধে বলেছিল বলেও মনে করিয়ে দিয়েছেন তিনি। যুক্তরাষ্ট্র সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল (সিডিসি) চীনের এ অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে।

মানবকণ্ঠ/জেএস

 




Loading...
ads






Loading...