ভারত-বাংলাদেশ বিমান চলাচল শুরু


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:৫৮

করোনার কারণে প্রায় পাঁচ মাস বন্ধ থাকার পর এয়ার বাবল চুক্তির আওতায় ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে বিমান চলাচল শুরু হয়েছে। রোববার (৫ সেপ্টেম্বর) ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের চেন্নাই ফ্লাইট দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হলো বাংলাদেশ-ভারত ফ্লাইট চলাচল।

সকাল সাড়ে ১০টায় ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের বিএস-২০৫ ফ্লাইটটি চেন্নাইয়ের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করে। ঢাকা থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট কলকাতা এবং ইন্ডিগো এয়ারের একটি ফ্লাইট কলকাতা থেকে ঢাকায় আসার কথা রয়েছে। তিনটি ফ্লাইট ফিরতি যাত্রী বহন করে আজই নিজ নিজ দেশে ফিরবে।

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের মহাব্যবস্থাপক-জনসংযোগ (জিএম-পিআর) মো. কামরুল ইসলাম বলেন, দীর্ঘদিন পর প্রথমবারের মতো ফ্লাইট ভারতে যাচ্ছে। ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটে মোট ১৩৫ জন যাত্রী চেন্নাই যাচ্ছেন। ফ্লাইটটি অনটাইমে সাড়ে ১০টায় ঢাকা ছেড়েছে। সব আনুষ্ঠানিকতা শেষে ফ্লাইট চালুর জন্য দুই দেশের সরকারকে ধন্যবাদ জানাচ্ছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স।

তিনি আরও বলেন, ইউএস-বাংলা সপ্তাহে তিন দিন প্রতি রোববার, বুধবার ও শুক্রবার সকাল ১০টা ৩০ মিনিটে ঢাকা থেকে চেন্নাইয়ের উদ্দেশে ছেড়ে যাবে। দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে চেন্নাই থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে আসবে।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স জানায়, রোববার ঢাকা থেকে কলকাতা রুটে বিমানের প্রথম ফ্লাইট যাওয়ার কথা রয়েছে। এরপর ৭ সেপ্টেম্বর থেকে ঢাকা-কলকাতা রুটে প্রতি মঙ্গলবার ও বৃহস্পতিবার দুটি ফ্লাইট পরিচালনা করবে বিমান। এছাড়া ঢাকা-দিল্লি রুটে বিমানের ফ্লাইট চালু হবে ৮ সেপ্টেম্বর। সপ্তাহে রোববার ও বুধবার দুটি ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে এ রুটে।

বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) জানায়, ভারত থেকে যাত্রীরা ‘বিজনেস ভিসা’ নিয়ে বাংলাদেশে আসতে পারবেন। ভারত থেকে আসা প্রত্যেক যাত্রীকে ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। এছাড়া বাংলাদেশ থেকে ট্যুরিস্ট ভিসা ছাড়া অন্য ভিসা নিয়ে ভারতে যাওয়া যাবে। ভারতযাত্রায় বাংলাদেশি যাত্রীদের ভারত সরকার ও সিভিল এভিয়েশনের সব বিধিনিষেধ মানতে হবে।

এয়ার বাবল চুক্তির আওতায় ভারত তাদের তিনটি এয়ারলাইন্সকে বাংলাদেশে সপ্তাহে সাতটি ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি দিয়েছে। এদের মধ্যে স্পাইস জেট তিনটি, ইন্ডিগো দুইটি ও এয়ার ইন্ডিয়া দুইটি ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি পেয়েছে।

করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে গতবছরের অক্টোবরে ভারতের সঙ্গে ‘এয়ার বাবল’ চুক্তির আওতায় বিমান চলাচল শুরু করেছিল বাংলাদেশ। এরপর চলতি বছরের এপ্রিলে মহামারির কারণে ভারত বিপর্যস্ত অবস্থায় পড়লে বিশেষ ব্যবস্থার ওই বিমান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

মানবকণ্ঠ/এমএইচ



poisha bazar

ads
ads