বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলার রায় আজ

- ফাইল ছবি

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:২৭,  আপডেট: ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:৩৬

ধ্বংসের প্রায় ২৮ বছর পর ভারতের অযোধ্যার ঐতিহাসিক বাবরি মসজিদ মামলার রায় ঘোষণা করা হবে আজ। ভারতসহ বিশ্বের মুসলিমরা রায়ের দিকে তাকিয়ে আছেন।

বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) মামলার রায় ঘোষণা করবেন লখনউয়ের বিশেষ সিবিআই আদালত।

আলোচিত এই মামলায় মোট ৪৯ জনকে অভিযুক্ত করে এফআইআর দায়ের করা হয়েছিলো। বিজেপির অনেক সিনিয়র নেতা মামলায় অভিযুক্ত।

অভিযুক্তদের মধ্যে ১৭ জন এরই মধ্যে মারা গেছেন। বেঁচে আছে ৩২ জন। ওই মামলায় উল্লেখযোগ্য অভিযুক্তদের মধ্যে আছেন বিজেপির সিনিয়র নেতা এলকে আদভানি, মুরালি মনোহর যোশী, উত্তরপ্রদেশের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী কল্যাণ সিং, বিজেপির ফায়ার ব্র্যান্ড নেত্রী উমা ভারতী, বিনয় কাটিয়ারের মতো নেতাও।

রায় প্রসঙ্গে অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল’ বোর্ডের সদস্য কামাল ফারুকী বলেন, ‘২৭ বছর আগে অযোধ্যায় যা ঘটেছিল তা রাতের অন্ধকারে নয় বরং দিনের আলোয় হয়েছিলো।

উল্লেখ্য, অযোধ্যায় ২ দশমিক ৭৭ একর বিতর্কিত জমির মালিকানা দাবি করে আসছিল মুসলিম ও হিন্দু দু’পক্ষই। মুসলিমদের পক্ষে বলা হয়েছে, সেই জায়গায় মন্দির থাকার কোনো প্রমাণ নেই। ১৯৯২ সালে বাবরি মসজিদ ভেঙে দেয় উগ্র হিন্দুত্ববাদীরা। তাদের বিশ্বাস, পুরনো মন্দির ভেঙে দিয়ে সেই জায়গায় মসজিদ গড়ে তোলা হয়েছে, যে জায়গাটি ছিল রামচন্দ্রের জন্মভূমি।

২০১০ সালের সেপ্টেম্বরে এলাহাবাদ হাইকোর্ট বিতর্কিত জমিটিকে তিনভাগে ভাগ করে দেয় সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড, নির্মোহী আখড়া এবং রাম লালার মধ্যে। তবে এই রায়ে অসন্তুষ্ট হয়ে সুপ্রিম কোর্টে যায় তিনপক্ষই। টানা ৪০ দিন শুনানির পর গত ১৬ অক্টোবর রায় স্থগিত করে দিয়েছিলেন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ।

এরপর ২০১৯ সালের ১০ নভেম্বর ভারতের বাবরি মসজিদ ভেঙে ফেলা মসজিদের জমিতে মন্দির নির্মাণের রায় দেন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈর নেতৃত্বাধীন পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ। 

মানবকণ্ঠ/এসকে





ads