অস্ত্র ঠেকিয়ে পুত্রবধূকে ধর্ষণ করে খুনের হুমকি দিলেন নেতা! 

- ছবি: সংগৃহীত।

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১০ আগস্ট ২০১৯, ২০:২৯

গভীর রাতে নিজ পুত্রবধূর কপালে বন্দুক ঠেকিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে বিজেপির প্রাক্তন বিধায়ক মনোজ শোকিনের বিরুদ্ধে। এখানেই শেষ নয়। খুনের হুমকি দিয়েছিলেন পুত্রবধূ এবং তার ভাইকেও।

গত ৩১ ডিসেম্বর পুত্রবধূকে ধর্ষণ করেছিলেন এমন অভিযোগে বিজেপির ওই প্রাক্তন বিধায়কের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৬ এবং ৫০৬ নম্বর ধারায় মামলা রুজু করেছে দিল্লি পুলিশ।

বৃহস্পতিবার থানায় গিয়ে এফআইআর করেন মনোজের পুত্রবধূ। তাতে তিনি অভিযোগ করেন, গত ৩১ ডিসেম্বর তার স্বামী, ভাই আর বোনকে নিয়ে মীরা বাগে শ্বশুরবাড়ি যাবেন বলে তার বাবার বাড়ি থেকে রওনা হন। কিন্তু তার স্বামী তাদের নিয়ে যান পশ্চিম বিহার এলাকার একটি বিলাসবহুল হোটেলে।

এফআইআরে মনোজের পুত্রবধূ লিখেছেন, ‘আমরা হোটেলে পৌঁছে দেখি, সেখানে আগেভাগেই উপস্থিত শ্বশুরবাড়ির লোকজন। তারা বর্ষবরণের উৎসবে মেতে ছিলেন। অনেক রাত পর্যন্ত পার্টি চলার পর রাত সাড়ে ১২টার দিকে আমি স্বামীর সঙ্গে ফিরে যাই শ্বশুর বাড়িতে। কিন্তু বাড়িতে আমাকে পৌঁছে দিয়েই বন্ধুদের নিয়ে বেরিয়ে পড়েন স্বামী। ক্লান্ত থাকায় আমিও দেরি না করে শুয়ে পড়ি।’

মনোজের পুত্রবধূর অভিযোগ, রাত দেড়টার দিকে হঠাৎ তার দরজায় ধাক্কা মারতে শুরু করেন তার শ্বশুর। সেই শব্দে তার ঘুম ভেঙে যায়। জরুরি কথা আছে বলে মনোজ পুত্রবধূকে তার ঘরের দরজা খুলতে বলেন।

এফআইআরে মনোজের পুত্রবধূ লিখেছেন, ‘ঘরে ঢুকেই উনি (মনোজ) উৎভ্রান্তের মত আমার শরীর হাতাতে শুরু করেন। উনি তখন মদ্যপ ছিলেন বলে আমি তাকে বলি, ঘরে গিয়ে শুয়ে পড়ুন। কিন্তু উনি আমার কথা না শুনে পকেট থেকে পিস্তল বের করে আমার কপালে ঠেকিয়ে বলেন, কথা না শুনলে আমাকে ও আমার ভাইকে মেরে ফেলবেন। আমি এলার্ম বাজাতে গিয়েও পারলাম না। তিনি আমার ওপর শক্তি প্রয়োগ করলেন এবং আমাকে ধর্ষণ করলেন।’

কিন্তু এতদিন পরে এসে কেন এ কথা ফাঁস করছেন, মামলা করছেন। এ প্রশ্নের জবাবে ওই গৃহবধূ বলেন, আমার সংসার ও ভাইকে বাঁচাতে চেয়েছি প্রথমে। তাই এত দিন মুখ বুঁজে ছিলাম, শ্বশুরের বিরুদ্ধে অভিযোগ দেয়া থেকে বিরত ছিলাম।

এদিকে দিল্লি পুলিশের ডেপুটি কমিশনার (আউটার) সেজু পি কুরুভিল্লা বলেছেন, ‘ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত হচ্ছে। যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ সূত্র- আনন্দবাজার।




Loading...
ads





Loading...