নয়াপল্টনেই বিএনপির সমাবেশ: ফখরুল


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ৩০ নভেম্বর ২০২২, ২১:০০

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে কমফোর্টেবল না হওয়ায় আগামী ১০ ডিসেম্বর নয়াপল্টনেই বিএনপির সমাবেশ করবে বলে জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল।

সরকারের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আমরা পরিষ্কার করে বলছি, আপনারা সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করুন এবং জনগণের ভাষা বোঝার চেষ্টা করুন। এখানে (নয়াপল্টন) আমরা সমাবেশ করব সে ব্যবস্থা গ্রহণ করুন। সে ব্যবস্থা গ্রহণের দায়িত্ব আপনাদের।

বুধবার বিকেলে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপির উদ্যোগে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে এসব কথা বলেন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, পরিষ্কার করে বলতে চাই এক মাস আগে আমাদের দলের পক্ষ থেকে পুলিশ কমিশনারকে চিঠি দেয়া হয়েছে। নয়াপল্টনের সামনে আমরা বিভাগীয় সমাবেশটি করতে চাই। এখানে বহু সমাবেশ হয়েছে, জাতীয় সমাবেশ হয়েছে, মহাসমাবেশ হয়েছে, বেগম খালেদা জিয়া সমাবেশ করেছেন, বিশ দলীয় জোটের সমাবেশ হয়েছে। কিন্তু কোনোদিন কোনো সমস্যা হয়নি। সুতরাং আমরা যে চিঠি দিয়েছি অনেক ভেবেচিন্তেই তা দিয়েছি। এটা ঢাকা বিভাগীয় সমাবেশ, জাতীয় সমাবেশ নয়।

সরকারকে উদ্দেশ্য করে বিএনপি মহাসচিব আরও বলেন, যে জায়গায় আপনারা সমাবেশের অনুমতি দিতে চান সে জায়গায় আমরা কমফোর্টেবল নই, পরিষ্কার কথা। চতুর্দিকে দেয়াল। যাওয়ার কোনো রাস্তা নেই, একটি মাত্র গেট। একজন ঢুকলে আরেকজন বের হতে পারে না। তাই পরিষ্কার করে বলছি জনগণের ভাষা বুঝতে চেষ্টা করুন। জনগণের কথা বুঝতে পেরে এখানে নয়াপল্টনে সমাবেশ করব সেই ব্যবস্থা করুন।

তিনি বলেন, ঢাকা বিভাগের নেতাকর্মীদের কাছে এটা একটা চ্যালেঞ্জ। এই চ্যালেঞ্জ হচ্ছে ১০ তারিখে বিভাগীয় সমাবেশকে তাদের সফল করতে হবে। তরুণ যুবকরা যেভাবে রুখে দাঁড়িয়েছে কারও ক্ষমতা নেই তাদের রুদ্ধ করার। এই কাফেলা সামনের দিকে এগিয়ে যাবে এবং বিজয় সুনিশ্চিত হবে।

সরকারের উদ্দেশ্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, দয়া করে সংঘাতের দিকে যাবেন না। দয়া করে এমন কোনো পরিস্থিতির দিকে রাষ্ট্রকে নিয়ে যাবেন না, যেখান থেকে ফেরার কোনো পথ না থাকে। আপনারা এই সিদ্ধান্ত মনে করুন এবং এখানে (নয়াপল্টনে) শান্তিপূর্ণভাবে সমাবেশ হতে পারে সেই ব্যবস্থা করুন।

বিক্ষোভ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা উত্তর বিএনপির আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমান। যৌথভাবে সঞ্চালনা করেন ঢাকা উত্তর বিএনপির সদস্য সচিব আমিনুল হক ও দক্ষিণ বিএনপির সদস্য সচিব রফিকুল আলম মজনু।

আরও বক্তব্য দেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, আবুল খায়ের ভূঁইয়া, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন প্রমুখ।

মানবকণ্ঠ/এসআরএস


poisha bazar