আ.লীগ নতুন প্রজন্মকে ভুল ইতিহাস জানাচ্ছে: ফখরুল

- ফাইল ছবি

poisha bazar

  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৭ মার্চ ২০২১, ২১:৫৩

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ অত্যন্ত সুপরিকল্পিতভাবে নতুন প্রজন্মকে ভুল ইতিহাস জানাচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি দাবি করেন, সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ঘোষণাই সমগ্র জাতিকে উদ্দীপ্ত করেছে স্বাধীনতা যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ার জন্য।

রোববার (৭ মার্চ) বিকেলে জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে বিএনপির স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন জাতীয় কমিটির উদ্যোগে ঐতিহাসিক ৭ মার্চের এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

ফখরুল বলেন, এদেশের মানুষ পাকিস্তানিদের যে বৈষম্যমূলক চিন্তাভাবনা, তাদের যে পজিশন, বাংলাদেশের মানুষকে অভাবী করার সম্পূর্ণভাবে যে উদ্যোগ তার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছিল। সবই আমাদের ছাত্ররা করে গেছে ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনের মধ্য দিয়ে। এভাবে প্রতিটি মুহূর্তে প্রতিটি সময়ে এ দেশে ছাত্রছাত্রীরা, তরুণরা-যুবকরা তাদের দেশের স্বাধীনতাকে আনার জন্য, তাদের অধিকারকে রক্ষা করার জন্য একটা গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ব্যবস্থা নির্মাণ করার লড়াই করেছে, যুদ্ধ করেছে, বুকের তাজা রক্ত দিয়ে দিয়েছে।’

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ কী করেছে? আওয়ামী লীগ অত্যন্ত সুপরিকল্পিতভাবে এই নতুন প্রজন্মকে সেই ইতিহাস থেকে বঞ্চিত করে তাদের ভ্রান্ত ইতিহাস দিচ্ছে। একটা ধারণা দিচ্ছে যে, একটি মাত্র দল, একজনই মাত্র ব্যক্তি আর একটি গোষ্ঠী যারা এদেশের সব কিছু এনে দিয়েছে। সব স্বাধীনতা এনে দিয়েছে, উন্নয়ন এনে দিয়েছে, এখানে মানুষের অধিকারগুলো এনে দিয়েছে। মিথ্যা ইতিহাস দিয়ে তারা প্রজন্মকে বিভ্রান্ত করছে।

ফখরুল বলেন, আমরা তুলে ধরতে চাই এদেশের স্বাধীনতার জন্য কখন কবে থেকে কারা প্রাণ দিয়েছে, রক্ত দিয়েছে, সংগঠিত করেছে, সংগ্রাম করেছে। তাদের বক্তব্যের কোথাও তোফায়েল আহমেদের কথা খুঁজে পাবেন না। তারা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর নাম একবারও উচ্চারণ করে না। এমনকি যুদ্ধের যে সর্বাধিনায়ক এমএজি ওসমানী ছিলেন তার নাম একবারও উচ্চারণ করে না। এমনকি যুদ্ধকালীন যে প্রবাসী সরকার যিনি নেতৃত্ব দিলেন তাজউদ্দিন আহমেদ তার নাম একবারও উচ্চারণ করে না। এত সংকীর্ণ এরা। কত ভয়ঙ্কর যে, শুধু ব্যক্তিগত স্বার্থে ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য, নিজেকে মহিমান্বিত করার জন্য, একজন মানুষকে মহিমান্বিত করার জন্য, একটি পরিবারকে মহিমান্বিত করার জন্য তারা শুধু মিথ্যা ইতিহাস এদেশের মানুষকে চাপিয়ে দিতে চায়।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, যারা গবেষণা করছেন, তাদের গবেষণায় উঠে এসেছে যে, শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের যে ঘোষণা, সেই ঘোষণাই সমগ্র জাতিকে উদ্দীপ্ত করেছে স্বাধীনতা যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ার জন্য। দ্যাট ইজ দ্যা ট্রুথ। এটাতে কাউকে ছোট করা হয় না, এটাতে কাউকে বড় করা হয় না।

তিনি আরও বলেন, আজকে অস্বীকার করার উপায় নেই সুপরিকল্পিতভাবে, সচেতনভাবে তারা স্বাধীনতার সাথে সবচেয়ে বড় বিশ্বাসঘাতকতা করেছে। এ দেশের মানুষ যে আশা-আকাঙ্ক্ষা, ৩০ লাখ মানুষের যে আত্মাহুতি সবকিছুর সাথে বেঈমানি করে তারা গণতন্ত্রকে কেড়ে নিয়েছে। কোথায় আমাদের অধিকার আছে?

মানবকণ্ঠ/এসকে






ads
ads