দুর্গতদের পাশে নেই বিএনপির বহু নেতা


poisha bazar

  • ছলিম উল্লাহ মেজবাহ
  • ১০ আগস্ট ২০২০, ১০:৪০

বন্যাদুর্গত মানুষদের পাশে নেই বিএনপির অনেক শীর্ষ নেতা। পবিত্র ঈদুল আজহার দিন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্যদের সাক্ষাতে তিনি নির্দেশ দিয়েছিলেন বন্যা ও করোনা ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়াতে। তার নির্দেশের পর গত কয়েকদিন অতিবাহিত হলেও দলের অনেক শীর্ষ নেতা বন্যাদুর্গতদের পাশে দাঁড়াতে দেখা যায়নি।

তবে বিচ্ছিন্নভাবে কয়েকটি জায়গায় জেলা ও কেন্দ্রীয় নেতারা পাশে দাঁড়ানোর খবর পাওয়া গেছে। ৫০২ বিশিষ্ট বিএনপির কার্যনির্বাহী কমিটির স্থায়ী কমিটির বর্তমান সদস্য রয়েছেন ১১ জন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ৬৮ জন, ভাইস চেয়ারম্যান ৩৫ জন ও যুগ্ম মহাসচিব রয়েছেন ৭ জন। তাদের মধ্যে গুটি কয়েকজনকে বন্যাদুর্গতদের পাশে দাঁড়াতে দেখা গেছে।

ফরিদপুর সদর উপজেলার আলিয়াবাদ ইউনিয়নের সাদিপুর, খুশির বাজার ও বিলনালিয়ার জাহাঙ্গীরনগরের মোড় এলাকায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের গত শনিবার ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক মন্ত্রী চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ। তার পক্ষে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত ৬০০ পরিবারের মধ্যে স্থানীয় বিএনপি নেতারা ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেন।

ফরিদপুর কোতোয়ালি থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হাসান চৌধুরী রঞ্জন জানান, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে ৬০০ পরিবারকে ৫ কেজি করে চাল ও ৩ কেজি করে আটা দেয়া হয়।

এ প্রসঙ্গে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলগমীর জানান, ‘করোনা ভাইরাসের সময়টাতে বন্যায় ত্রাণ ও পুনর্বাসনের ক্ষেত্রে যতটুকু সম্ভব দুর্গতদের পাশে দাঁড়াতে নেতা-কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া।’

করোনা মহামারী ও বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত টাঙ্গাইল সদর উপজেলায় বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেছেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ ইকবাল। গত মঙ্গলবার পোড়াবাড়ী ইউনিয়নে সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত বিভিন্ন এলাকার কয়েকশ’ বানভাসী মানুষের মাঝে বিএনপির নেতা ফরহাদ ইকবাল নিজস্ব তাহবিল থেকে এ ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেন।

ফরহাদ ইকবাল বলেন, দেশ ও মানবজাতির কল্যাণে বিএনপি যে কোনো সময় নিবেদিত প্রাণ। তাই টাঙ্গাইলের বানভাসী মানুষের যে কোনো বিপদে আমরা কাজ করে যাবো।’

মানিকগঞ্জের হরিরামপুর উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির পক্ষ থেকে ৪ শতাধিক বন্যার্ত পরিবারের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। গত শুক্রবার দুপুরে উপজেলার রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়নের মানিকনগর মসজিদের সামনে ও বন্যাদুর্গত এলাকায় বাড়ি বাড়ি গিয়ে এ ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হয়। তবে এখন পর্যন্ত ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমদ, জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীকে দলীয় কিংবা ব্যক্তিগতভাবে বন্যাদুর্গতদের পাশে দাঁড়াতে দেখা যায়নি।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ

 





ads







Loading...