সুনসান নয়াপল্টন

মানবকণ্ঠ

poisha bazar

  • ছলিম উল্লাহ মেজবাহ
  • ০৯ জুলাই ২০২০, ১১:৪৭

সব ধরনের সাংগঠনিক কার্যক্রম ১৫ জুলাই পর্যন্ত স্থগিত বিএনপির। এ কারণে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নেই নেতাকর্মীদের আনাগোনা। তবে প্রতিদিন বেলা ১১টায় আসেন দলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রিজভী আহমেদ। ব্রিফিং ছাড়াও দাফতরিক কাজকর্ম শেষ করে তিনি চলে যান দুপুর ১টায়। বাকিটা সময় থাকে তালামারা।

গত তিন মাস ধরে করোনাকালে এই চিত্র রাজধানীর নয়াপল্টনের বিএনপি দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে। গতকাল বুধবারও একই চিত্র দেখা গেছে। হাতেগোনা কয়েকজন নিজস্ব নিরাপত্তা ও অফিস কর্মীরা ছাড়া আর কাউকে দেখা মেলেনি।

দলের কার্যালয়ের নিরাপত্তা কর্মীরা জানালেন, করোনার আগে নেতাকর্মীদের পদচারণায় মুখর থাকত। এখন সুনসান নীরবতা। এমনকি নেই আশপাশে জনমানুষের ভিড়ও। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সাংগঠনিক সম্পাদক মানবকণ্ঠকে বলেন, দলীয় কার্যক্রম স্থগিতের পর একদিনের জন্যও এমুখী হননি দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বিএনপির চেয়ারপার্সনের গুলশান কার্যালয়ে নিয়মিত ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলন করেন।

নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের মতো নেতাকর্মী ফাঁকা গুলশান বিএনপির চেয়ারপার্সনের অফিসও। গতকাল বুধবার সরেজমিনে দেখা গেছে এ চিত্র। নিরাপত্তার দায়িত্ব থাকা এক কর্মী জানালেন, দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ছাড়া এখানে আর কোনো নেতাকর্মী আসেন না। নাম প্রকাশ না করার শর্তে তিনি বলেন, মাঝে মধ্যে শায়রুল কবির খান ও শামছুদ্দিন দিদার আসেন। তারাও বেশিক্ষণ থাকেন না। বাকিটা সময় থাকে সুনসান নীরবতা।

মানবকণ্ঠ/এইচকে





ads






Loading...