সাদামাটা সম্মেলনেও ব্যাপক প্রস্তুতি

সাদামাটা সম্মেলনেও ব্যাপক প্রস্তুতি

poisha bazar

  • সাইফুল ইসলাম
  • ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৯:৫১

আর মাত্র কয়েকদিন পরই অনুষ্ঠিত হবে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের ২১তম জাতীয় সম্মেলন। তবে এবারের সম্মেলনটি হবে সাদামাটা। জাতীয় সম্মেলন সাদামাটা হলেও সম্মেলনস্থল হবে জমকালো। এবার পদ্মার বুকে পাল তোলা নৌকার আদলে সম্মেলন মঞ্চ তৈরি করা হচ্ছে। আগামীতে মুজিব বর্ষ উদযাপনের ব্যাপক প্রস্তুতির কারণে এবারের সম্মেলনটি সাদামাটা করছেন ক্ষমতাসীন দলটি। মঞ্চটিতে পদ্মা সেতুর নমুনাও ফুটে উঠবে বলে জানা গেছে। ১০২ ফুট দীর্ঘ ৪০ ফুট প্রশস্ত মঞ্চে প্রধান অতিথির হিসেবে সম্মেলন উদ্বোধন করবেন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

জানা যায়, দলের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন আয়োজনের মঞ্চ নিয়ে বিশেষ পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। আশপাশের এলাকাসহ মূল মঞ্চটি এমনভাবে স্থাপন করা হবে, যেন পদ্মা নদীর বুকে ভেসে বেড়াচ্ছে একটি বিশাল নৌকা। সেই নৌকার চারপাশজুড়ে থাকছে প্রমত্ত পদ্মার বিশাল জলরাশি। এর মধ্যে থাকছে স্বপ্নের পদ্মা সেতুও।

এছাড়াও পদ্মার জলতরঙ্গ, পদ্মার বুকে ঘুরে বেড়ানো ছোট ছোট নৌকা, এমনকি চরের মধ্যে কাশবনের উপস্থিতিও থাকবে। এর মধ্যে মূল মঞ্চটি হবে ১০২ ফুট দীর্ঘ, ৪০ ফুট প্রশস্ত। আর সামনের পদ্মা সেতুতে থাকবে ৪০টি পিলার। ২০ ডিসেম্বর সম্মেলনের সূচনা হলেও ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যেই সোহরাওয়ার্দী উদ্যান সম্পূর্ণ প্রস্তুত হয়ে যাবে সম্মেলনের জন্য। এরপর ১৬ থেকে ১৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত চার দিন সম্মেলনস্থল থাকবে সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত। তারা এই সময়ের মধ্যে সম্মেলনস্থলটি ঘুরে-ফিরে দেখতে পারবেন। এরপর ২০ ডিসেম্বর বিকেল ৩টায় শুরু হবে সম্মেলনের আনুষ্ঠানিকতা। পরদিন ২১ ডিসেম্বর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হবে দলের কাউন্সিল অধিবেশন।

গত রোববার বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলের ২১তম জাতীয় সম্মেলন উপলক্ষে মঞ্চ ও সাজসজ্জা উপ-কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে প্রধান অতিথি দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের বলেন, সরকারের পাশাপাশি দলীয়ভাবেও মুজিববর্ষ উদযাপন করা হবে। এ কারণে ঠিক যতটা না করলেই নয়, ঠিক ততটুকুই করব সম্মেলনে। তাই আমরা সাজসজ্জার দিকে না গিয়ে অভ্যন্তরীণ সৌন্দর্য ও শৃঙ্খলার দিকে মনোযোগ বেশি দিচ্ছি।

এদিকে, বুধবার সকালে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন উপলক্ষে মঞ্চ নির্মাণ পরিদর্শনের প্রস্তুতি দেখতে পরিদর্শনে যান আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং সম্মেলনের মঞ্চ ও সাজসজ্জা উপ-কমিটির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানকসহ কেন্দ্রীয় নেতারা।

এ সময় নানক সাংবাদিকদের বলেন, সম্মেলন উপলক্ষে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের বাইরেও কোনো ধরনের সাজসজ্জা হবে না। এবারের সম্মেলনে সব মিলিয়ে ৫০ হাজার কাউন্সিলর ও ডেলিগেট অংশ নেবেন। আওয়ামী লীগের আসন্ন ২১তম জাতীয় সম্মেলন জাঁকজমকপূর্ণ নয়, সাদামাটা ভাবেই অনুষ্ঠিত হবে।

তিনি আরো বলেন, সম্মেলন উপলক্ষে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের বাইরেও কোনো প্রকার সাজসজ্জা হবে না। এবারের সম্মেলনে সব মিলিয়ে ৫০ হাজার কাউন্সিলর ও ডেলিগেটস অংশগ্রহণ করবেন।

মানবকণ্ঠ/আরবি






ads