মেজর জলিল ছিলেন রাজনীতির নতুন ধারার বরপুত্র : ন্যাপ মহাসচিব

মানবকণ্ঠ
ছবি - প্রতিবেদক।

poisha bazar

  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ১৪:৩২,  আপডেট: ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ১৪:৩৭

মুক্তিযুদ্ধের সেক্টর কমান্ডার, মুক্তিযুদ্ধোত্তর বিরোধীদলীয় স্রোতধারার প্রাণপুরুষ মেজর জলিলকে বাংলাদেশের রাজনীতির মাঠে নতুন ধারার বরপুত্র হিসাবে আখ্যায়িত করে বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেন, তিনি ছিলেন এক অসাধারণ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব। স্বাধীনতা উত্তর নতুন প্রজন্মের মাঝে নতুন স্বপ্নের জাল বুনতে পেরেছিলেন তিনি।

মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) নয়াপল্টনের যাদু মিয়া মিলনায়তনে মুক্তিযুদ্ধের ৯ নং সেক্টর কমান্ডার মেজর এম এ জলিলের ৩০তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ ঢাকা মহানগর আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের আজকের প্রেক্ষাপটে মেজর জলিল অত্যন্ত প্রাসঙ্গিক। একসময় যেকোনো দুঃশাসনের বিরুদ্ধে তর্জনি উঁচিয়ে ‘খামোশ’ বলতেন মজলুম জননেতা মওলানা ভাসানী। স্বাধীনতার স্বপ্নভঙ্গের প্রেক্ষাপটে ‘রুখো’ বলে আধিপত্যবাদের পথ রোধ করে দাঁড়িয়েছিলেন মেজর জলিল।

ন্যাপ মহাসচিব বলেন, মেজর জলিল যখন মৃত্যুবরণ করেন, তখন তার কোনো স্থাবর সম্পত্তি ছিল না। জাতির জন্য উৎসর্গপ্রাণ, প্রশস্ত হৃদয়ের মানুষটি জাতির জন্য রেখে গেলেন একবুক ভালোবাসা। মেজর জলিল সত্যের জন্য, মানুষের জন্য, অন্যায়-অত্যাচার ও জুলুমের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের এক জ্বলন্ত উপমা। সর্বোপরি স্বাধীনতার জন্য সর্বোচ্চ ত্যাগের অনুপম দৃষ্টান্ত।

তিনি বলেন, স্বাধীনতার ঊষালগ্নে বিরোধীদলীয় রাজনীতির সাহসী যোদ্ধা, শোষণ-বঞ্চনার বিরুদ্ধে আমত্যু বজ্রকণ্ঠ ও সংগ্রামী জননেতা মেজর জলিল। তার নামটি উচ্চারিত হলে মানসপটে ভেসে ওঠে জাতীয় রাজনীতিতে দুই দশকজুড়ে প্রভাব বিস্তারকারী-মুক্তির নেশায় সতত জাগ্রত, কল্যাণব্রতে অঙ্গীকারবদ্ধ, বস্তুগত জীবনে প্রতিষ্ঠাবিমুখ, এক অসাধারণ দেশপ্রেমিকের প্রতিচ্ছবি।

তিনি আরো বলেন, একজন দেশপ্রেমিক ও মুক্তিকামী সাহসী যোদ্ধার সন্ধান চাইলে মেজর এম এ জলিলের মতো একজন সাহসী যোদ্ধাকে আমাদের প্রয়োজন পড়বেই। তার স্মৃতি প্রতিনিয়ত আমাদের প্রেরণা জোগাবে। জাতীয় জীবনের যেকোনো সন্ধিক্ষণে, সঙ্কটে দুর্বিপাকে আমাদের বারবার স্মরণ করিয়ে দেবে মেজর জলিলের কথা। আমাদের স্বাধীনতা কখনো অরক্ষিত হয়ে পড়লে আমাদের সামনে ভেসে উঠবে মেজর জলিলের সেই বাণী ‘অরক্ষিত স্বাধীনতাই পরাধীনতা’।

বাংলাদেশ ন্যাপ ঢাকা মহানগর সভাপতি মো. শহীদুননবী ডাবলু'র সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশগ্রহন করেন এনডিপি মহাসচিব মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা, ন্যাপ ভাইস চেয়ারম্যান স্বপন কুমার সাহা, মহানগর যুগ্ম সম্পাদক মো. শামিম ভুইয়া, মহিলা সম্পাদিকা সাদিয়া ইসলাম ঈমন, নোয়াখালি জেলা সভাপতি মো. বেরায়েত হোসেন প্রমুখ।

মানবকণ্ঠ/জেএস




Loading...
ads





Loading...