আগামী দশ বছরে ৩ কোটি মানুষের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে: অর্থমন্ত্রী

মানবকণ্ঠ
ছবি - প্রতিবেদক।

poisha bazar

  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ১০ অক্টোবর ২০১৯, ২১:৪৭,  আপডেট: ১০ অক্টোবর ২০১৯, ২১:৫০

অর্থমন্ত্রী ও কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আহম মোস্তফা কামাল এমপি বলেন, আগামী দশ বছরের মধ্যে দেশে ৩ কোটি মানুষের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হবে। এ তিন কোটি মানুষের কর্মসংস্থানের পর আর কোনো মানুষ কমের্র বাইরে থাকবে না।

বৃহস্পতিবার (১০ অক্টোবর) কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে উদ্বোধকের বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী শিক্ষার সাথে সম্পৃক্তদের অনুরোধ করে বলেন, বর্তমান শিক্ষা ব্যবস্থায় সংস্কার করার মাধ্যমে আধুনিক এবং যুগোপযোগি শিক্ষায় শিক্ষিত করে দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে হবে।

আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের কর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, জাতির পিতা মানুষের মুখে হাসি ফোটানোর স্বপ্ন নিয়ে সারাজীবন কাজ করেছেন। কিন্তু তা দেখে যেতে পারেননি। একটি রক্তাক্ত যুদ্ধ এবং অনেক প্রাণের বিনিময়ে আমরা এ দেশ পেয়েছি। আমাদের সামনে আরেকটি যুদ্ধ, এ যুদ্ধে কোন রক্তপাত হবে না। এ যুদ্ধ হচ্ছে সোনালী যুদ্ধ। এ যুদ্ধে জয়লাভের মাধ্যমে আমরা জাতির পিতার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করবো। এখন আমাদের সে লক্ষে কাজ করতে হবে।

সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুল মতিন খসরু এমপি বলেন, আওয়ামী লীগের প্রধান যোগানদাতা হলো ছাত্রলীগ। তিনি আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ ও মহিললীগ নেতাদের অনুরোধ করে বলেন, কর্মী রিক্রুট করার সময় দেখে করবেন। কোন ডাকাত, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ ও মাদকসেবীদের দলে প্রয়োজন নাই। সৎভাবে রাজনীতি করলে মানুষ অন্তর থেকে শ্রদ্ধা সম্মান করবে। এর চাইতে বড় সম্পদ আর কি হতে পারে? আদর্শবান নেতাকমী প্রয়োজন। জি কে শামীমদের মতো নেতাদের আদর্শ নেই। তারা সম্মানের সাথে মরে না।

সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সাবেক রেলমন্ত্রী ও কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ মুজিবুল হক বলেন, চৌদ্দগ্রামে জামায়াতের অত্যাচারে আল্লাহর আরস কেঁপে উঠেছিল। আমরা সাহস হারাইনি। জনগণের সাথে ছিলাম বলে জনগণ আমাদের আবার সুযোগ করে দিয়েছে।

তিনি দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, রাজনীতির পথ অনেক লম্বা। ধৈর্য্য হারালে চলবে না। মনপ্রাণ ও দরদ দিয়ে আওয়ামী লীগ করলে, দল অনেক কিছু দেয়, তাকে মূল্যায়ন করে।

উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুস ছোবহান ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন কুমিল্লা জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি জসিম উদ্দিন চৌধুরী, আলী হোসেন চেয়ারম্যান, সামছুল আলম মজুমদার, উপজেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও পৌর মেয়র মিজানুর রহমান, জেলা পরিষদ সদস্য ভিপি ফারুক আহমেদ মিয়াজী, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এবিএম এ বাহার, উপজেলা আ’লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ভ.ম. আফতাবুল ইসলাম, সুপ্রীমকোর্টের আইনজীবি এডভোকেট আব্দুল মান্নান, গুনবতী ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম ফারুক হেলাল, বাতিসা ইউপি চেয়ারম্যান জাহিদ হোসেন টিপু, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক ও শ্রীপুর ইউপি চেয়ারম্যান শাহজালাল মজুমদার, ইউপি চেয়ারম্যান মাহবুব হোসেন মজুমদার, খোরশেদ আলম, মোশারেফ হোসেন, একরামুল হক, মাহফুজ আলম, সৈয়দ আহমেদ খোকন, আলহাজ জানে আলম ভূঁইয়া, কাজী জাফর আহমদ, জাফর ইকবাল, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লোকমান হোসেন রুবেল ও উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক তৌফিকুল ইসলাম সবুজ প্রমুখ।

উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা জিএম মীর হোসেন মিরু ও ভ ম আফতাবুল ইসলামের সঞ্চালনায় সভায় আরো বক্তব্য রাখেন, কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি হাজী ইলিয়াস মিয়া, সদর দক্ষিণ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম সরোয়ার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন স্বপন, নাঙ্গলকোট উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সামছুদ্দিন কালু, ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু তাহের প্রমুখ।

সম্মেলন উপলক্ষে উপজেলার একটি পৌরসভা ও ১৩টি ইউনিয়ন থেকে ৩১ জন করে কাউন্সিলর এবং ২’শ জন করে ডেলিগেটর আমন্ত্রণ করা হয়েছে। সন্ধ্যায় উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুস সোবহান ভুঁইয়া হাসান সভাপতি ও মিয়াবাজার ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ রহমত উল্লাহ বাবুল সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন।

মানবকণ্ঠ/এইচকে




Loading...
ads




Loading...