প্রয়োজনে অপরাধীদের দল থেকে বের করে দিতে হবে: আ.ক.ম মোজাম্মেল হক

মানবকণ্ঠ
ছবি - প্রতিবেদক।

poisha bazar

  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ১০ অক্টোবর ২০১৯, ২১:২৩,  আপডেট: ১০ অক্টোবর ২০১৯, ২১:২৭

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী ও গাজীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আ. ক. ম মোজাম্মেল হক এমপি বলেছেন, আওয়ামী লীগ একটি ঐতিহ্যবাহী দল। দলের সভানেত্রী শেখ হাসিনার সাথে অন্যদের পার্থক্য হলো, দলের কেউ অপরাধ করে কখনো ছাড় পায় না। ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বও ছাড় পায়নি। আজ ছাত্রলীগের যখন এই অবস্থা দেখি, তখন হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হয়। দলের বিভিন্ন পর্যায়ের অপরাধীদের সর্বোচ্চ শাস্তির ব্যবস্থা হচ্ছে। প্রয়োজনে অপরাধীদের দল থেকে বের করে দিতে হবে। শৃঙ্খলাবোধ ও সুশিক্ষা না থাকলে সঠিক নেতৃত্ব সৃষ্টি হয় না। যদি নিজের দলকে শুদ্ধ করতে চান, তাহলে জানা-বোঝার চেষ্টা করতে হবে। রাজনৈতিক চর্চার মাধ্যমে তাদের নীতি-আদর্শের দিকে ধাবিত করতে হবে।

বৃহস্পতিবার (১০ অক্টোবর) দুপুরে গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে উদ্বোধনী বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, শত ষড়যন্ত্রের মাঝেও তাজউদ্দীন আহমদ স্বাধীনতা যুদ্ধের সঠিক নেতৃত্ব দিয়ে মুক্তিযুদ্ধ পরিচালনা করেছিলেন। ১৫ আগষ্টের ধারাবাহিতকায় ৩ নভেম্বরে জেলখানায় জাতীয় চার নেতার হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।

কাপাসিয়া সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সভাপতি মুহম্মদ শহীদুল্লাহ’র সভাপতিত্বে এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান প্রধানের পরিচালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বঙ্গতাজকন্যা সিমিন হোসেন রিমি এমপি। তিনি বলেন, আমি রাজনৈতিক পরিবার থেকে উঠে আসা আওয়ামী লীগের সাধারণ কর্মী। কাপাসিয়ায় দলের নেতৃত্বকে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গতাজের আদর্শে গড়ে তুলেছি। বর্তমানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশব্যাপী পরিকল্পিত উন্নয়ন সংঘটিত হচ্ছে। এর ধারাবাহিকতায় কাপাসিয়ায় ব্যাপক উন্নয়ন সংঘটিত হয়েছে।

এলাকার প্রতি দায়বদ্ধতা স্বীকার সিমিন হোসেন রিমি আরো বলেন, কাপাসিয়ার রাস্তাঘাট, ব্রিজ-কালভার্ট, বিদ্যুৎ, শিক্ষা-সংস্কৃতি, বই পড়া, স্কাউট, স্বাস্থ্যসেবাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। কাপাসিয়ায় প্রসূতি মৃত্যুর হার শূণ্যের কোঠায় নামিয়ে আনা হয়েছে।

এ সময় প্রধান বক্তা গাজীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন সবুজ এমপি বলেন, তরুণরা আগামী দিনের ভবিষ্যত। তরুণদের নেশা থেকে দূরে থাকতে হবে। নেতাদের আদর্শের কথা বলবেন, আবার নেশার সাথে থাকবেন। তা হতে পারে না।

অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি কাপাসিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাড. মোঃ আমানত হোসেন খান, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রেজাউর রহমান লস্কর মিঠু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মাজহারুল ইসলাম সেলিম, মহিলা আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান রওশন আরা সরকার, উপজেলা যুবলীগের সভাতি মাহবুব উদ্দিন সেলিম, সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন প্রধান, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল কাইয়ূম ভূঁইয়া, কাপাসিয়া ডিগ্রি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মাহমুদুল হাসান মামুন প্রমুখ।

পরে সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনে কাউন্সিলারদের সর্বসম্মতিক্রমে বীর মুক্তিযোদ্ধা মুহম্মদ শহীদুল্লাহ’কে সভাপতি ও মিজানুর রহমান প্রধানকে সাধারণ সম্পাদক হিসাবে নির্বাচিত করা হয়।

মানবকণ্ঠ/এইচকে




Loading...
ads




Loading...