'বরিশালে বিস্ফোরিত শাওমি ফোনটি অননুমোদিত'


poisha bazar

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ৩১ আগস্ট ২০১৯, ১৭:১৫

বিস্ফোরিত শাওমি ফোনগুলোর অধিকাংশই অবৈধভাবে আসা এবং অননুমোদিত জানিয়ে শাওমি বাংলাদেশের কান্ট্রি জিএম জিয়াউদ্দিন চৌধুরী পণ্য কেনার ক্ষেত্রে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

শুক্রবার (৩০ আগস্ট) শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের পরিচালকের শাওমি ফোন বিস্ফোরিত হওয়ার পর জিয়াউদ্দিন চৌধুরী বলেন, শাওমিতে পণ্যের গুণগত মান অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে বিবেচিত হয়। আমাদের পণ্যগুলি সর্বোচ্চ মানে তৈরি কি না তা নিশ্চিত করতে কঠোর মানের পরীক্ষার মধ্য দিয়ে যায়। তবে অবৈধভাবে দেশের বাজারে যেসব পণ্য আসে সেগুলোর গুণগত মান বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ঠিক থাকে না।

তিনি বলেন, অবৈধভাবে আসা পণ্য কিনে থাকলে সেসব পণ্য ব্যবহারে অনেক সময় নানান দুর্ঘটনাও ঘটে থাকে, সেক্ষেত্রে ঐ পণ্যের ব্র্যান্ডকে দায়ী করা একেবারেই অনুচিত হবে।

তিনি আরও বলেন, শুক্রবার বরিশালে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. বাকির হোসেনের বাসায় শাওমির ‘Xiaomi mi a1’ মডেলের একটি মোবাইল হ্যান্ডসেট বিস্ফোরিত হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনা তদন্ত করতে আমরা ব্যবহারকারীর সাথে যোগাযোগ করেছি এবং জানতে পেরেছি তিনি যে ফোনটি ব্যবহার করছিলেন, তা অননুমোদিত ছিল। পণ্যটি নকল কিনা তাও খতিয়ে দেখতে আমরা আরও তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছি।

জিয়াউদ্দিন চৌধুরী বলেন, ব্যবহারকারীর সর্বোত্তম সুরক্ষা নিশ্চিত করতে আমরা আমাদের গ্রাহকদের সবসময়ই অনুমোদিত পণ্যগুলি কিনতে অনুরোধ করে থাকি। আমরা এটাও বলতে চাই, যে ঘটনাগুলি ঘটছে সেগুলো সাধারণতা অবৈধভাবে আসা ফোন কেনার অভ্যাসের কারণেই ঘটছে এবং সবার ঘটে যাওয়া এসব দুর্ঘটনা এড়াতে পণ্য কেনার ক্ষেত্রে আরও সচেতন হওয়া উচিত।

মানবকণ্ঠ/এইচকে/আর




Loading...
ads




Loading...