রেল যোগাযোগে এলটিই-আর সল্যুশন চালু করল হুয়াওয়ে



  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১১ জুন ২০১৯, ১৭:২০

পরবর্তী প্রজন্মের জন্য তারবিহীন রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়তে যৌথভাবে এলটিই-রেলওয়ে (এলটিই-আর) সল্যুশন চালু করল শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে ও তাদের অংশীদার তিয়ানজিন ৭১২ কমিউনিকেশন অ্যান্ড ব্রডকাস্টিং কোম্পানি লিমিটেড (টিসিবি ৭১২)। রেল যাত্রীদের নিরাপত্তা ও দক্ষতা নিশ্চিত করতে ইতোমধ্যে উচ্চ গতিসম্পন্ন, বিশ্বস্ত ও বুদ্ধিবৃত্তিক যোগাযোগ ব্যবস্থা সম্পন্ন এই সল্যুশনটি চীনে চালু করা হয়েছে। সোমবার সুইডেনের স্টকহোলমে আয়োজিত ইউআইটিপি গ্লোবাল পাবলিক ট্রান্সপোর্ট সামিট-২০১৯-এ হুয়াওয়ে এই প্রযুক্তি প্রদর্শন করে।

উচ্চ গতিসম্পন্ন ট্রেনের ব্যাপক উন্নয়নে মানুষের যোগাযোগ ব্যবস্থা দ্রুত, নিরাপদ ও আরামদায়ক হয়েছে। নিরাপদ ও নির্ভরযোগ্য রেল সেবার মূল ভিত্তি যাত্রী, ট্রেন ও অবকাঠামোর মধ্যে তথ্য আদান প্রদান নিশ্চিত করে। এছাড়াও স্বয়ংক্রিয় ড্রাইভিং, বুদ্ধিবৃত্তিক ট্রেন এবং স্মার্ট স্টেশন গড়ে ওঠায় এখন উচ্চ গতি সম্পন্ন এবং বুদ্ধিবৃত্তিক তারবিহীন যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রয়োজন। এসব চাহিদা মেটাতে এবং সম্পূর্ণ সংযুক্ত রেলযোগাযোগ ব্যবস্থা গড়তেই এলটিই-আর সল্যুশন গড়ে তোলা হয়েছে।

এই এলটিই-অর সল্যুশন ৫জি সমর্থন করে এবং জিএসএম-আর-এর সঙ্গে সংযুক্ত। এই সল্যুশনের অ্যাডভ্যান্সড ফিচারগুলোর মধ্যে রয়েছে মাল্টিপল ট্রাকিং সার্ভিস (যেমন- মিশন ক্রিটিক্যাল পুশ টু টক ভয়েস, ভিডিও, ডাটা এবং এলটিই-আর সল্যুশনের মাধ্যমে ট্রেন নিয়ন্ত্রণ, ট্রেন ছেড়ে যাওয়া, যাত্রীর তথ্য সংরক্ষণ, সিসিটিভি এবং রেলের অন্যান্য সেবা)। ৫জির সহায়তায় এই সল্যুশন ভবিষ্যতে এমন একটি রেল সেবা গড়ে তুলবে, যেখানে সবকিছুই সংযুক্তি থাকবে।

এই সেবা চালুর অনুষ্ঠানে এই খাতে হুয়াওয়ের কাজের অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন হুয়াওয়ে এন্টারপ্রাইজ বিজনেস গ্রুপের গ্লোবাল ট্রান্সপোর্টেশন বিজনেস ইউনিটের প্রেসিডেন্ট ইমান লিউ। তিনি বলেন, রেল খাতে যোগাযোগের ক্ষেত্রে হুয়াওয়ের ২০ বছরের অভিজ্ঞতা আছে, এক লাখ ২০ হাজার কিলোমিটারের বেশি রেল সেবা দিচ্ছে এবং বিশ্বে ১০০টিরও বেশি আরবান ট্রাক আছে। রেল যাত্রীদের চাহিদা অনুযায়ী তারবিহীন নেটওয়ার্ক প্রযুক্তি গড়ে তুলতে বিনিয়োগ অব্যাহত ও নতুন নতুন উদ্ভাবনে হুয়াওয়ে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। এলটিই-আর সল্যুশনের মাধ্যমে ট্রেন থেকে স্টেশনের ও ট্রেন থেকে ট্রেনে তারবিহীন ভায়েস ও তথ্য আদান প্রদানের মাধ্যমে যোগাযোগ সম্ভব হবে।

টিসিবি ৭১২-এর মোবাইল কিমিউনিকেশন বিজনেস ইউনিটের আর অ্যান্ড ডি বিভাগের জেনারেল ম্যানেজার ঝেং চিসুন বলেন, ১৯৬০ প্রতিষ্ঠার পর থেকে রেল খাতের উন্নয়নে কাজ করতে আমরা বদ্ধপরিকর। পরবর্তী প্রজন্মের তারবিহীন রেল যোগাযোগ গড়ে তুলতে ২০১০ সালের পর থেকে টিসিবি ৭১২ হুয়াওয়ের সহায়তায় জিএসএম-আর এবং এলটিই-আর সল্যুশন গড়ে তুলেছে। এই সল্যুশনগুলো গড়তে দুটি কোম্পানিকে অনেক চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে হয়েছে। এই সল্যুশনগুলো দক্ষিণ আফ্রিকায় পরীক্ষামূলকভাবে চালু করা হয়, যেখানে যাত্রীরা একটি নিরাপদ ও নির্ভরযোগ্য রেল সেবার অভিজ্ঞতা নিতে পেরেছেন।

মানবকণ্ঠ/এসএস



Loading...
ads


Loading...