রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নিয়ে মিথ্যা বলছে মিয়ানমার: পররাষ্ট্রমন্ত্রী



  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১২ জুন ২০১৯, ১৪:০৮

রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে মিয়ানমারের মিথ্যাচার ও অপপ্রচারের বিষয়ে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। তিনি বলেন, আমরা প্রতিবেশী দেশের বিরুদ্ধে কিছু বলতে চাই না। কারণ তারা আমাদের বন্ধু। কিন্ত তারা রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার ব্যাপারে মিথ্যা বলছে। এমন ডাহা মিথ্যা আমরা কেমন করে হজম করবো।

বুধবার সকাল ১০টার দিকে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় রোহিঙ্গা ইস্যুতে বিভিন্ন দেশের কূটনৈতিকদের সঙ্গে বৈঠকে তিনি এ আহ্বান জানান।

বৈঠক শেষে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন সাংবাদিকদের বলেন, সাম্প্রতিককালে মিয়ানমারের মন্ত্রী বলেছেন- বাংলাদেশ থেকে যে সব রোহিঙ্গা যাচ্ছে না এর জন্য বাংলাদেশ দায়ী। বাংলাদেশ কোনো ধরণের কো-অপারেশন করছে না। তার এ বক্তব্য সঠিক নয়। বাংলাদেশ রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে সব সময় প্রস্তুত। কিন্ত মিয়ানমার বার বার কথা দিয়ে কথা রাখছে না। রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার কথা ছিল মিয়ানমারের। কিন্তু তাদের অসহযোগিতার কারণে তা সম্ভব হয়নি। রোহিঙ্গাদের কারণে বাংলাদেশের ভূখণ্ডে বিভিন্ন রকম অপরাধ সংঘটিত হচ্ছে।

তিনি বলেন, ৬ মাস আগে যখন মিয়ানমারের জয়েন্ট কমিশনের সঙ্গে আমাদের বৈঠক হয় তখন তারা বলেছিল রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার ব্যাপারে তারা কাজ করছে। তারা বার বার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন রোহিঙ্গাদের নিয়ে যাবেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত একজন রোহিঙ্গাও ফেরত যায়নি। এমনকি মিয়ানমারের নো-ম্যান্সল্যান্ডে যারা আছেন তারাও ফেরত যায়নি।

ড. মোমেন বলেন, মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের নিয়ে যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল, সেটা তারা রাখছে না। রাখাইনে ৮০০টি গ্রামের মধ্যে তারা মাত্র দুইটি গ্রামের পরিস্থিতি ভালো দেখিয়ে বলছে, সেখানে কোনো সমস্যা নেই। আবার তাদের অনুরোধ করবো রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার জন্য। রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়া ব্যাপারে তাদের বন্ধুপ্রতীম দেশগুলো প্রতিও অনুরোধ জানাবো।

এ ছাড়াও সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা বিদেশি কূটনীতিকদের রোহিঙ্গা পরিস্থিতি ব্যাখা করেছি। এ বিষয়ে তারা কি করবে, সেটা তাদের সিদ্ধান্ত। তবে আমরা তাদের সহায়তা চেয়েছি।

রোহিঙ্গা সংকট শুরুর পর থেকেই বিভিন্ন সময় সরকারের পক্ষ থেকে বিদেশি কূটনীতিকদের কাছে পরিস্থিতি তুলে ধরা হয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় আজ মঙ্গলবার সকালে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় এই ব্রিফিংয়ের আয়োজন করা হয়। এতে ঢাকার যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা, চীন, ভারত, সুইজারল্যান্ড, নরওয়ে, সুইডেন, ব্রাজিল, ফিলিস্তিন প্রভৃতি মিশনের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়াও অংশ নেন জাতিসংঘ, ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধি।

মানবকণ্ঠ/এসএস



Loading...
ads


Loading...