১১ দাবিতে শ্রমিক ধর্মঘটে সারাদেশে অচল নৌপথ



  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১৬ এপ্রিল ২০১৯, ১৩:২১

বেতনভাতা বৃদ্ধি, নিরাপত্তা, নদীপথে চাঁদাবাজি বন্ধসহ ১১ দাবিতে শ্রমিকরা ধর্মঘট ডাকায় সারাদেশে সব ধরনের নৌযান চলাচল বন্ধ রয়েছে। মঙ্গলবার সকাল থেকে নৌযান শ্রমিকরা লাগাতার এই ধর্মঘট শুরু করে।

সরকার নির্ধারিত কাঠামোয় মালিকরা বেতন না দেয়ায় এই ধর্মঘট ডাকা হয়েছে বলে শ্রমিকরা জানিয়েছেন। যার ফলে সকালে রাজধানীর সদরঘাট থেকে কোনো লঞ্চ ছেড়ে যায়নি। অনেকেই ঘাটে এসে কোনো লঞ্চ না পেয়ে বিপাকে পড়েছেন।

বিআইডব্লিউটিএর পরিবহন পরিদর্শক দিনেশ কুমার সাহা বলেন, সকালে সদরঘাটে অনেক যাত্রী এসেছিল। কিন্তু লঞ্চ না চলায় তারা ফিরে যান। সোমবার রাত ১২টার পর সদরঘাট থেকে কোনো লঞ্চ ছাড়েনি। তবে দক্ষিণাঞ্চল থেকে রাত ১২টার আগে ছেড়ে আসা ৪৩টি লঞ্চ সদরঘাটে এসেছে।

নৌযান শ্রমিকদের দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে- নৌপথে সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি ও ডাকাতি বন্ধ, ২০১৬ সালের ঘোষিত বেতন স্কেলের পূর্ণ বাস্তবায়ন, ভারতগামী শ্রমিকদের ল্যান্ডিং পাস দেওয়া ও হয়রানি বন্ধ, নদীর নাব্যতা রক্ষা, নদীতে প্রয়োজনীয় মার্কা, বয়া ও বাতি স্থাপন।

এদিকে অনির্দিষ্টকালের এ ধর্মঘটের ফলে মঙ্গলবার খুলনার বিআইডব্লিউটিএর ৪, ৫, ৬ ও ৭ নম্বর ঘাট এবং রুজভেল্ট জেটিতে অবস্থানরত কোনো জাহাজ থেকে পণ্য খালাস ও বোঝাই করা হয়নি। এমনকি মোংলা বন্দর থেকে যশোরের নওয়াপাড়া পর্যন্ত কোথাও কোনো নৌযান চলছে না।

এছাড়াও সকাল থেকে যাত্রীবাহী লঞ্চ ছাড়েনি বরিশাল নদীবন্দর থেকে। এতে করে ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ যাত্রীরা।ধর্মঘটের ফলে নদীবন্দর থেকে পণ্যবাহী নৌযান চলাচল বন্ধ রয়েছে। নৌযানগুলো নদীবন্দরে নোঙর করে রয়েছে। মালামাল বোঝাই ও খালাসের কাজ বন্ধ রয়েছে।


মানবকণ্ঠ/এএম



Loading...
ads


Loading...