নুসরাত হত্যা : সেই শম্পা গ্রেফতার



  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১৫ এপ্রিল ২০১৯, ১৭:২৫

ফেনীর সোনাগাজীতে নুসরাত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় আলোচিত সেই শম্পা ওরফে চম্পাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। সোমবার পিবিআইয়ের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মনিরুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, নুসরাত জাহান রাফি হত্যাচেষ্টার ঘটনায় আলোচিত সেই শম্পা ওরফে চম্পাকে ফেনী থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তবে কখন গ্রেফতার করা হয়েছে সে বিষয়ে তিনি কিছু বলেননি।

উল্লেখ্য, শম্পা নামটি আলোচনায় আসে সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসার আলীম পরীক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফিকে আগুনে পুড়িয়ে মারার ঘটনায়। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ৭ই এপ্রিল চিকিৎসকদের কাছে দেয়া জবানবন্দিতে (ডাইং ডিক্লারেশন) ‘শম্পা’ নামটি উল্লেখ করেন নুসরাত। চিকিৎসকদের তিনি বলেন, হাত মোজা, চশমা ও বোরকা পরা চারজন তাকে মাদরাসা ভবনের তিন তলার ছাদে ডেকে নেয়। পরে এই চারজন নুসরাতের দুই হাত পেছনে ওড়না দিয়ে বেঁধে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। এদের মধ্যে একজনকে বাকিরা ‘শম্পা’ বলে সম্বোধন করেন। চিকিৎসকদের কাছে দেয়া জবানবন্দিতে এমন কথা বলেন নুসরাত। তার দেয়া এমন জবানবন্দির পর শম্পাকে ধরতে তৎপর হয় পুলিশ।

নুসরাতের গায়ে আগুন দেয়ার ঘটনায় পপি জড়িত থাকতে পারে এমন সন্দেহে তাকে আটক করা হয় বলে জানায় পুলিশ। তবে, খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসা কিংবা নুসরাতের সহপাঠীদের মধ্যে শম্পা নামে কেউ নেই। এমনকি ঘটনাস্থলের আশেপাশে ও স্থানীয়দের মধ্যে এই নামে কারো অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যায়নি। স্থানীয় বাসিন্দারাও এই নামে কাউকে চিনছেন না। তবে, পুলিশ ও এলাকাবাসীর ধারণা অপরাধীরা তাদের আসল পরিচয় এড়াতে ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে বিভ্রান্ত করতে কৌশলে ‘শম্পা’ নামটি ব্যবহার করে থাকতে পারে। তারপর ‘শম্পা’ নামের বিষয়টি যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়ে দেখা হয়। পরে সেই শম্পা ওরফে চম্পাকে ফেনী থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ



Loading...


Loading...