শিশু অপহরণের দায়ে ২ জনের মৃত্যুদণ্ড



  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১৬ মে ২০১৯, ১৬:৫৪

রাজধানীর ক্যান্টনমেন্ট থানায় আবির নামে এক শিশুকে অপহরণ ও মুক্তিপণ আদায়ের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় দুই ব্যক্তিকে মৃত্যুদণ্ড ও আটজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইবুনাল-৭ এর বিচারক মো. খাদেম উল কায়েস এ রায় ঘোষণা করেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই আসামি হলেন— ঝালকাঠি জেলার কাঠালিয়ার মো. মশিউর রহমান মন্টু (৪০) ও বরগুনা জেলার আমতলী থানার দক্ষিণ টেপুরার মিজানুর রহমান (৩৫)। তারা থাকতেন রাজধানীর পল্লবীতে।

যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্তরা হলেন— মো. রেজাউল করিম (৩৬), নজরুল ইসলাম (৩২), মো. আবদুল্লাহ আল মামুন (৩৮), মো. ইকবাল হোসেন শুভ (২৮), সজীব আহমেদ কামাল (৪৭), মো. আলিম হোসেন চন্দন (২৭), কাওসার মৃধা (২৫), রেজা মৃধা (৩০)। এদের মধ্যে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত মিজানুর এবং যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত দুই ভাই কাওসার ও রেজা পলাতক রয়েছে।

যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের পাশাপাশি প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরো তিন মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দেন। অপর দুই আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় আদালত তাদের বেকসুর খালাস ঘোষণা করেন। খালাসপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন— জহিরুদ্দিন মো. বাবর ও শাহ।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের মে মাসে শিশু আবির ক্যান্টনমেন্টের বাসা থেকে উত্তরায় যায়। উত্তরা থেকে আসার পথে বনানী ওভারব্রিজের নিচে আসামিরা তাকে অপহরণ করে তার পরিবারের কাছে ১০ কোটি টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। আবিরের পরিবার তাদের দুই কোটি টাকা দেয়। পরবর্তীতে বিষয়টি তারা র‌্যাবকে জানায়। র‌্যাব আবিরকে উদ্ধার করে এবং আসামিদের গ্রেফতারসহ তাদের কাছ থেকে ১ কোটি ৮০ লাখ টাকা উদ্ধার করে।

পরে ১৭ মে ছেলেটির মামা বনানী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে এ মামলা দায়ের করেন। সেদিনই র‌্যাবের একটি দল মিজানসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে।

রাষ্ট্রপক্ষে ৩১ জনের সাক্ষ্য শুনে আদালত বৃহস্পতিবার এ মামলার রায় ঘোষণা করে বলে ট্রাইব্যুনালের রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি আফরোজা ফারহানা আহমেদ অরেঞ্জ জানান।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ



Loading...


Loading...