'গুপ্তচরবৃত্তির জন্য দূতাবাস ব্যবহার করত অ্যাস্যাঞ্জ'



  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১৫ এপ্রিল ২০১৯, ১১:৪৬

কোন দেশের চাপে উইকিলিক্স প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাস্যাঞ্জকে দূতাবাস থেকে বের করে দেয়া হয়নি । লন্ডনে অবস্থিত ইকুয়েডর দূতাবাস গুপ্তচরবৃত্তির জন্য ব্যবহার করতএন তিনি । ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার গার্ডিয়ানকে দেয়া সাক্ষাতকারে এমনটাই দাবি করেছেন ইকুয়েডরের প্রেসিডেন্ট লেনিন মরেনো।

লেনিন মরেনো বলেন, আমরা আমাদের বাড়ি,যার দরজা সবসময় উন্মুক্ত সেটিকে গুপ্তচরবৃত্তির কাজে ব্যবহার করতে দিতে পারি না।

২০১২ সালে যৌন হয়রানির অভিযোগে আসাঞ্জের বিরুদ্ধে পুলিশ গ্রেপ্তারী পরোয়ানা জারি করে ব্রিটেন। পরে তিনি লন্ডনে অবস্থিত ইকুয়েডরের দূতাবাসে আশ্রয় নেন।ধারণা করা হচ্ছে, আইএনএ পেপারস নামক একটি গোপন তথ্য ফাঁসের জের ধরে আসাঞ্জকে বের করে দিয়েছে ইকুয়েডর। ওই গোপন তথ্যে অ্যাস্যাঞ্জ ইকুয়েডরের প্রেসিডেন্ট লেনিন মরেনো'র দুর্নীতির খবর ফাঁস করেন।এ ছাড়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া প্রেসিডেন্ট মরেনোর কিছু ব্যক্তিগত ছবির জন্য উইকিলিক্সকে দায়ী ভাবছে ইকুয়েডর।



Loading...


Loading...