নুসরাতের মৃত্যুতে শোবিজে শোক



  • অনলাইন ডেস্ক
  • ১১ এপ্রিল ২০১৯, ১৭:৫৬

মাদরাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে আগুনে ঝলসে হত্যার ঘটনায় সর্বত্র শোকের ছায়া নেমে এসে। অনলাইন অফলাই দুই মাধ্যমে নুরাতের মৃত্যু নিয়ে উঠেছে প্রতিবাদ। বুধবার রাফির মুত্যুর খবরের পর থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা ও দোষীদের ফাঁসির দাবি আসছে। এ ঘটনায় শোবিজ অঙ্গনেও নেমে এসেছে শোকের ছায়া। অনেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শোক জানিয়েছেন।

অভিনেত্রী মেহের আফরোজ শাওন তার ফেসবুকে লিখেছেন, ‘একটা কন্যা সন্তানের খুব শখ ছিল। গোলগাল মায়া মায়া মুখ। ডাগর ডাগর চোখ। মাথা ভর্তি কোঁকড়ানো চুল। চেহারায় নকল এক গাম্ভীর্য! আমার লীলাবতী মা’টা। পৃথিবীতে আসার আগেই চলে গেছে ভালোই হয়েছে। এ দেশটা মানুষরূপী হায়েনায় ভরা।

জনপ্রিয় অভিনেত্রী তারিন জাহান তার ফেসবুকে লিখেছেন, ‘ফেনীতে আগুনে জ্বলসে দেয়া মাদ্রাসা শিক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফি মারা গেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। এই ঘটনার সাথে প্রত্যক্ষ-পরোক্ষভাবে জড়িত মানুষরূপী সকল পিশাচকে দ্রুত গ্রেফতার করে ট্রাইবুনালের মাধ্যমে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি কার্যকর করার দাবি জানাচ্ছি।’

আর এক অভিনেত্রী জাকিয়া বারী মম তার ফেসবুকে লিখেছেন, ‘নুসরাত আশ্চর্য আমরা। যেদিন আমার ছেলে-মেয়ে নুসরাতের মত হবে সেদিন বুঝবে.... কত ধানে কত চাল...।’

নারী নাট্যনির্মাতা চয়নিকা চৌধুরী তার ফেসবুকে লিখেছেন, ‘আমার মেয়েকে ওই এলাকায় গোসল দিবা না! মৃত্যুর পরপর নুসরাতের মা মেয়েকে চুমু দিয়ে এই কথাই বলেন। হে দয়াময়, মায়ের এই শোক বহনের ক্ষমতা দাও।...

অভিনেত্রী শার্লিন ফারজানা তার ফেসবুকে লিখেছেন, ‘বেশির ভাগ সময় ভুলে থাকি, কিন্তু পৃথিবী আসলেই কঠিন! কি ভয়াবহ অসহায়ত্বের ভেতর দিয়ে একটি পরিবার যেতে পারে!’

অভিনেত্রী আশনা হাবিব ভাবনা তার ফেসবুকে লিখেছেন, ‘শুধুমাত্র আজকে সব স্ট্যাটাস নুসরাতকে নিয়ে, তারপর আবার আমরা ভুলে যাব সব। আবারও কোন মেয়েকে কেউ জ্বালিয়ে দিবে, কেউ রাস্তায় বুকে চাপ দিবে, রেপ করবে, মেরে ফেলবে। এসব শয়তানের বাচ্চাদের রাস্তায় সবার সামনে ফাঁসিতে ঝুলানো উচিত।’

কণ্ঠশিল্পী সাবরিনা সাবা তার ফেসবুকে লিখেছেন, ‘নিউজটা পড়েই মনে দাগ কেটে উঠলো, অনেক আগেও এগুলো নিয়ে বলেছি, অনেক লিখেছি কোন লাভ হয়েছে কি? তনুহত্যার সময় ও মানববন্ধন করেছি। কি লাভ? যখন ঘরের শত্রু বিভীষণ!

প্রধানমন্ত্রী নিজে তার খরচ বহন করতে চেয়েছেন। তিনি নিজে মেয়েটির মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন।

মডেল-অভিনেত্রী জান্নাতুল নাঈম এভ্রিল তার ফেসবুকে লিখেছেন, ‘প্রকাশ্য দিনে এমন কাজ করার পরেও সেই মাদরাসা হুজুরের বিরুদ্ধে কেউ কিছু বলার সাহস করতে পারেনি। এবং সেই হয়রানিকারী হুজুরের মুক্তির দাবিতে আই রিপিটের মিছিল হয়েছে। সে মিছিলের সামনে কয়েকটা মেয়ে এবং আশেপাশে আরও কয়েকটা ছেলে। মোটমাট কয়েকশো মানুষ। এই দেশে যৌন হয়রানিকারীর মুক্তির দাবিতে মিছিল হয়। এই দেশে একটা মেয়েকে গায়ে আগুন দিয়ে খুন করা হয়। এই দেশে একটা মেয়ে অন্যায়ের বিচার চাইতে পারে না। অথচ এই দেশের প্রধানমন্ত্রী একজন নারী।

এই দেশের প্রতিষ্ঠাতা হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, যিনি কিনা বীরাঙ্গনাদের বাবার নামের জায়গায় তার নিজের নাম বসাতে বলেছিলেন এবং ঠিকানার জায়গায় নিজের বাড়ির ঠিকানা বসাতে বলেছিলেন। এই দেশটা আপনার, আমার, আমাদের অহ ভালো কথা মেয়েটা মরে গিয়ে বেঁচে গেছে, কারণ এই দেশটা ওর না। কিছুতেই না।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ



Loading...
ads


Loading...