ধর্ষকের সাথে গৃহবধূর বিয়ে, শ্রীঘরে আওয়ামী লীগ নেতা


poisha bazar

  • প্রতিনিধি, দৈনিক মানবকণ্ঠ
  • ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৭:৩৭

গৃহবধূকে গণধর্ষণ ও থানায় ডেকে বিয়ে দেয়ার ঘটনায় আওয়ামী লীগ নেতা শরিফুল ইসলাম ঘন্টুকে (৩৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে টেবুনিয়া খাদ্যগুদাম এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে।

ঘন্টু দাপুনিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক। তার অফিসেই ওই নারীকে তিন দিন আটকে রেখে ধর্ষণ করা হয় বলে ভুক্তভোগীর অভিযোগ।

পাবনা সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইবনে মিজান জানান, সোমবার রাতে মামলা দায়েরের পর অভিযুক্ত শরিফুল ইসলাম ঘন্টুকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ভুক্তভোগীর ওই নারী অভিযোগ করেছে খাদ্যগুদামের পেছনে ঘন্টুর অফিসে তিন দিন আটকে রেখে তাকে ধর্ষণ করা হয়েছে।

তিন সন্তানের জননী ওই নারীর অভিযোগ, প্রতিবেশী রাসেল আহমেদ গত ২৯ আগস্ট রাতে তার চার সহযোগীকে নিয়ে ওই নারীকে কৌশলে অপহরণ করে নিয়ে যায়। টানা ৪ দিন অজ্ঞাত স্থানে আটকে রেখে পালাক্রমে ওই নারীকে ধর্ষণ করে তারা। নির্যাতিতা গৃহবধূ কৌশলে পালিয়ে স্বজনদের বিষয়টি জানালে তারা গত ৫ সেপ্টেম্বর ভুক্তভোগীকে হাসপাতালে ভর্তি করেন। মেডিকেল পরীক্ষায় ধর্ষণের আলামতও মেলে। পরে গৃহবধূ নিজেই বাদী হয়ে পাবনা সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দিলে পুলিশ রাসেলকে আটক করে। পরে মামলা নথিভুক্ত না করে স্থানীয় একটি চক্রের মধ্যস্থতায় পূর্বের স্বামীকে তালাক ও অভিযুক্ত রাসেলের সঙ্গে বিয়ে দিয়ে পুলিশ ঘটনা মীমাংসা করে দেয়।

এ বিষয়ে পুলিশ কর্তৃপক্ষ ওসি ওবায়দুল হককে কারণ দর্শাতে বলেছে। এছাড়া ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে পরে থানায় মামলা নেয়া হয়। ঘটনা তদন্তের জন্য তিন সদস্যের কমিটি গঠন করেছে পুলিশ।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ




Loading...
ads




Loading...