বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ডেকে নিয়ে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ



  • অনলাইন ডেস্ক
  • ২১ জুলাই ২০১৯, ১১:২৩

নাটোরের বড়াইগ্রামে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক স্কুল ছাত্রীকে (১৫) ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করেছে বলে এক প্রেমিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে বনপাড়া-হাটিকুমরুল মহাসড়ক সংলগ্ন রেজুর মোড় এলাকার একটি পুকুর পাড়ে এ ঘটনা ঘটে।

ধর্ষণের শিকার হওয়া ওই মেয়ে উপজেলার আগ্রান উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রী।

এ ঘটনায় পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য প্রেমিকের বন্ধু বড়াইগ্রাম রেজুর মোড় এলাকার মোতালেব হোসেনের ছেলে সোহেল (৩৬) ও লক্ষীকোল এলাকার আসলাম হোসেনের ছেলে ইমন (২৮) কে আটক করেছে। তবে প্রতারক প্রেমিক পাবনা সদর উপজেলার দুবলার চর ঘাটনি পাড়া গ্রামের জিল্লুর রহমান ওরফে নাহিদকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

থানা ও স্কুলছাত্রীর পরিবার সুত্রে জানা যায়, প্রতারক জিল্লুর উপজেলার রাজ্জাক মোড়ে কাঠমিস্ত্রীর কাজ করে। প্রায় ৬ মাস আগে জিল্লুর নিজেকে নাহিদ নামে পরিচয় দিয়ে উপজেলার আগ্রান উচ্চ বিদ্যালয়ের ওই ছাত্রীর সাথে মোবাইলে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। শুক্রবার জিল্লুর মেয়েটিকে বিয়ে করবে বলে তার সাথে দেখা করতে চায়। সে অনুযায়ী রাত সাড়ে ১০টার দিকে মেয়েটি লক্ষীপুর এলাকার নানার বাড়ি থেকে সোহেল ও ইমনের সহযোগিতায় মোটর সাইকেলে চেপে পাশের রেজুর মোড়ে আসে। পরে জিল্লুর মেয়েটিকে একটি পুকুর পাড়ে নিয়ে ধর্ষণ করে। কিছু সময় পরে স্বজনেরা মেয়েটিকে বাড়িতে না পেয়ে খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে স্থানীয়দের সহায়তায় ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করে।

এ ব্যাপারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বড়াইগ্রাম সার্কেল) হারুন অর রশিদ জানান, এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুই সহযোগীকে আটক করা হয়েছে। মেয়েটির মেডিকেল চেকআপ সম্পন্ন হয়েছে। এ ব্যাপারে মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানান তিনি।

মানবকণ্ঠ/এএম

 

 




Loading...
ads




Loading...