কাজের প্রেমে যেভাবে পড়বেন



  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৫:০৩

ভালোবাসা জীবনে এলে কেমন লাগে বলুন তো? চারপাশের সবকিছুই সুন্দর লাগতে শুরু হয়, সবকিছুতেই যেন রং লেগে যায়। কিন্তু এই ভাবনাটা সব সময় সব ক্ষেত্রে থাকবে তেমনটা জরুরি নয়। তবে জীবনের যে ক্ষেত্রটি আপনাকে বাঁচিয়ে রাখছে, আপনার প্রতিদিনের প্রয়োজনীয় জিনিসের জোগান দিচ্ছে সেই ক্ষেত্রকে ভালো না বাসলে কিছুটা ঝামেলায় পড়বেন বৈকি।

শুনুন এবং প্রশ্ন করুন
অন্যের কথা শুনুন, প্রশ্ন করুন এবং আপনার সহকর্মীদের কাজের ব্যাপারেও আগ্রহী হোন। কাজের প্রতি স্বাভাবিক মনোভাব তৈরিতে এটি অন্য রকম পথপ্রদর্শক। আপনি যত মানুষের সঙ্গে আগ্রহ নিয়ে মিশবেন তত তারা আপনার সঙ্গে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করবে। আর এতে তাদের সঙ্গে আপনার সম্পর্কও আরও গভীর হবে।

অন্যের সঙ্গে নিজের গল্প শেয়ার করুন
চাকরিস্থলে অনেকেই বেশ একক মনোভাবাপন্নের হয়ে থাকেন। সবার সঙ্গে না মেশা, গল্প না করা, এমনকি নিজের বিষয়ে কিছু জানাতেও সংকোচে ভোগেন তারা। এমনটি হলে কাজকে মন থেকে ভালোবাসা কিছুটা কঠিনই হয়ে যাবে আপনার জন্য। অন্যের কাছে নিজেকে সুন্দরভাবে উপস্থাপনও কাজকে ভালোবাসার একটি অংশ। এর মানে এই নয় যে সবকিছুই বলতে হবে বা সব সময়ই বলতে হবে।
মতামত জিজ্ঞাসা করুন

অন্যের সঙ্গে নিজেকে নিয়ে আলোচনা করা আরও একটি ভালো দিক আছে। গল্প করতে করতে আমরা আমাদের নিজের ব্যাপারে না জানা ক্ষেত্রগুলো সম্পর্কে জানতে পারি। না জানা ক্ষেত্রগুলো হচ্ছে, আমাদের নিজেদের অজান্তে করে ফেলা কিছু অভ্যাস যেগুলো অনিচ্ছাকৃত সত্তে¡ও হয়ে যায়, অথবা অনেকের মাঝে থাকলে না করতে চাওয়া অভ্যাসগুলোর কারণেও অন্যের নজরে পড়ে যেতে হয়।

নিজের সঙ্গে সঙ্গে গ্রহণ করুন অন্যকেও
সম্পর্ক এবং বন্ধন তৈরি করতে নিজের সঙ্গে সঙ্গে অন্যেরও অসম্পূর্ণতা আর খামখেয়ালিপনা মেনে নিতে শিখুন। এটি অন্যকে সহজে গ্রহণ করার মানসিকতা তৈরি করবে আপনার মাঝে।

শেয়ার করুন অভিজ্ঞতা
কোনো একটি জায়গায় যখন আপনি বেশ অনেক দিন ধরে কাজ করছেন তার মানে সেই জায়গা সম্পর্কে কিছু অভিজ্ঞতা আপনার তৈরি হয়েছে। এই জ্ঞান বা অভিজ্ঞতাই আপনি শেয়ার করতে পারেন আপনার সহকর্মীর সঙ্গে। কাউকে কিছু শেখানোর সময় পুরনো কাজটি যেমন নতুন করে ঝালাই হয় তেমনি আপনিও কীভাবে অন্যকে শেখাতে হয় সে বিষয়ে নতুন কিছু জানলেন। অফিসে যদি নতুন কেউ জয়েন করে অথবা হতে পারে সে একজন ইন্টার্ন, তাকেও আপনি কাজের শুরুটা কীভাবে করতে হয় শিখিয়ে দিলেন।
নিজের শক্তিমত্তা সম্পর্কে জানুন

গবেষণা বলে, আমরা যত নিজেদের স্বভাবগত প্রতিভা নিয়ে কাজ করব, তত কাজের প্রতি উৎসাহী হব। আর সে সঙ্গে বাড়বে কাজের প্রতি ভালো লাগার সম্পর্ক। বন্ধু, সঙ্গী, সহকর্মী আর ম্যানেজার যে কারো সঙ্গেই আপনার কাজ, প্রতিভা বা শক্তি নিয়ে কথা বলুন, জানতে চান আর কী কী করতে পারলে ভালো হয়।

কাজে যুক্ত করুন ম্যানেজারকেও
অনেক ক্ষেত্রেই ম্যানেজারের সঙ্গে ভালো সম্পর্ক আপনার কাজে আনন্দ এনে দেয়। কথায় বলে, আপনি আপনার কাজকে ছাড়ছেন না, ছেড়ে দিচ্ছেন আপনার ম্যানেজারকে।


মানবকণ্ঠ/এইচকে 




Loading...
ads




Loading...