ত্রিপোলিতে সেনা-বিদ্রোহী সংঘর্ষ, নিহত ২১



  • অনলাইন ডেস্ক
  • ০৮ এপ্রিল ২০১৯, ০৬:০৬

লিবিয়ার রাজধানী ত্রিপোলিতে সেনা ও বিদ্রোহীদের মধ্যকার সংঘর্ষে কমপক্ষে ২১ জন নিহত হয়েছেন। শনিবার ঘটা এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো ২৭ জন।

প্রধানমন্ত্রী ফায়েজ আল-সিরাজ অভিযোগ করেছেন, জেনারেল হাফতার তাকে উৎখাতের চেষ্টা করছেন এবং সরকারি সেনারা বিদ্রোহীদের মোকাবিলা করবে।

জেনারলে হাফতারের বাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, নিহতদের মধ্যে রেড ক্রিসেন্টের একজন চিকিৎসক রয়েছেন। এছাড়া তাদের ১৪ যোদ্ধা নিহত হয়েছে।

এর আগে জাতিসংঘের পক্ষ থেকে দুই ঘণ্টার যুদ্ধবিরতির আহ্বান জানানো হয়েছিল। যাতে করে বেসামরিক নাগরিকদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া যায়। কিন্তু সংঘর্ষ অব্যাহত থাকে।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও অবিলম্বে সংঘর্ষ বন্ধ করে আলোচনায় বসার আহ্বান জানিয়েছেন উভয় পক্ষকে।

১৯৬৯ সালে কর্নেল মুয়াম্মার গাদ্দাফির ক্ষমতা দখলের সময় সহায়তা করেছিলেন সাবেক সেনা কর্মকর্তা খলিফা হাফতার। পরে তার সঙ্গে মতবিরোধের হলে যুক্তরাষ্ট্রে নির্বাসনে চলে যান তিনি। ২০১১ সালে গাদ্দাফি বিরোধী আন্দোলন জোরালো হলে ফিরে আসেন হাফতার। তখন থেকে বিদ্রোহী নেতা হিসেবে পরিচিত তিনি। গত ডিসেম্বরে লিবিয়ার আন্তর্জাতিক স্বীকৃত প্রধানমন্ত্রী ফয়েজ আল সেরাজ এর সঙ্গে এক সম্মেলনে দেখা করেন হাফতার। তবে আনুষ্ঠানিক আলোচনায় বসতে অস্বীকার করেন তিনি। গত সপ্তাহে সৌদি আরব সফর করে বাদশাহ সালমান ও যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে আলোচনা করেছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার রওনা দিয়েই ত্রিপোলির একশো কিলোমিটার দক্ষিণের শহর গারিয়ানের নিয়ন্ত্রণ নেয় হাফতারের এলএনএ-এর সদস্যরা।

মানবকণ্ঠ/এআর



Loading...


Loading...