নিউইয়র্কে ‘শোক দিবসের অনুষ্ঠানে হাসি-ঠাট্টাকারি’দের চিহ্নিত করার আহবান

- ছবি: এনআরবি নিউজ।


  • অনলাইন ডেস্ক
  • ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১৬:০৯

‘জাতীয় শোক দিবস’ উপলক্ষে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের অনুষ্ঠানে যারা হাসি-তামশা করেছে, তাদেরকে এক্ষুণি চিহ্নিত করতে না পারলে ভবিষ্যতে বড় ধরনের ষড়যন্ত্রের আশঙ্কা উড়িয়ে দেয়া যায় না’- এ অভিমত পোষণ করেছেন নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাকারিয়া চৌধুরী।

১৫ আগস্ট ‘জাতীয় শোক দিবস’ এবং ২১ আগস্টে গ্রেনেড হামলা দিবস উপলক্ষে ২৫ আগস্ট রোববার নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের দোয়া মাহফিল এবং আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যকালে জাকারিয়া উল্লেখ করেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের শোক দিবসের সভায় (ডাইভার্সিটি প্লাজায় ১৫ আগস্ট সন্ধ্যায়) বক্তৃতাকালে অট্টহাসিতে মেতে ওঠেন সংগঠনের এক নম্বর সদস্য শাহানারা রহমান। সেই হাসিতে মাতোয়ারা হন সংগঠনের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদসহ কয়েকজন। সেই হাসির ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ ঢাকার সর্বাধিক প্রচারিত দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে। এর ফলে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী পরিবারে নানা প্রশ্নের উদ্রেক ঘটেছে।’

মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক সুব্রত তালুকদার এ সভায় আরো বলেন, ‘জাতীয় শোক দিবস’র অনুষ্ঠানে গণমাধ্যমের সামনে যারা হাসি-ঠাট্টা করতে পারেন, তারা কখনো আওয়ামী লীগার হতে পারেন না। তারা সুযোগ-সন্ধানী হিসেবে আবির্ভূত হয়েছেন। এদেরকে খন্দকার মোশতাক, তাহের ঠাকুরের দোসর বললেও অতিরিক্ত বলা হবে না।’

সংগঠনের অন্যতম ভাইস প্রেসিডেন্ট ও বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের যুক্তরাষ্ট্র শাখার সেক্রেটারি আব্দুল কাদের মিয়া বলেন, জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের নেতা হিসেবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিউইয়র্কে আসছেন ২২ সেপ্টেম্বর। সে সময় জেএফকে এফকে এয়ারপোর্টে তাকে বিপুল সংবর্ধনা প্রদানের প্রস্তুতির পাশাপাশি জাতিসংঘে তার ভাষণের সময় বাইরে বড় ধরনের শান্তি সমাবেশ করতে হবে।

এ সভায় জাতিরজনকের আত্মার শান্তি ও মাগফেরাত কামনা এবং তার পরিবারের সকল শহীদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে আরো বক্তব্য রাখেন মহানগর আওয়ামী লীগের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট হাজী মফিজুর রহমান, সহ-সভাপতি আব্দুল মতিন পারভেজ, মোর্শেদ খান বদরুল, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের নির্বাহী সদস্য আমিনুল ইসলাম কলিন্স, মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মোস্তফা কামাল পাশা মানিক, যুগ্ম সম্পাদক আসরাব আলী খান লিটন, যুবলীগ নেতা সেবুল মিয়া, রহিমুজ্জামান সুমন প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, ‘সাম্প্রতিক সময়ে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের হরিবল অবস্থা তৈরী হয়েছে। পদায়ন, অপসারণ, যোগ-বিয়োগের খেলা শুরু করেছেন সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান। এ অবস্থায় সাধারণ প্রবাসীরাও হতভম্ব।’ এ অবস্থা থেকে সংগঠনকে রক্ষার জন্যে হাই কমান্ডের সুদৃষ্টি কামনা করেন বক্তারা।

অনুষ্ঠানের শুরুতে আলহাজ্ব মফিজুর রহমানের নেতৃত্বে বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয় ১৫ ও ২১ আগস্ট নিহতদের আত্মার মাগফেরাত কামনায়। একইসাথে জননেত্রী শেখ হাসিনার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনাও করা হয়।

মানবকণ্ঠ/এইচকে 




Loading...
ads




Loading...